সাক্কুর মামলা ও পরোয়ানা বাতিল চেয়ে আবেদন

নিজস্ব প্রতিবেদক ● কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের (কুসিক) মেয়র ও বিএনপি নেতা মনিরুল হক সাক্কুর বিরুদ্ধে জারি করা গ্রেফতারি পরোয়ানা এবং দুদকের দায়ের করা মামলা বাতিল চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করা হয়েছে।

আবেদনের ওপর শুনানি সুপ্রিম কোর্টের অবকাশের মাঝে নাকি কোর্ট খোলার পর অনুষ্ঠিত হবে তা জানা যায়নি।

বুধবার হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় সাক্কুর আইনজীবী ব্যারিস্টার এ এম মাহবুব উদ্দিন খোকন এ আবেদন করেন। আবেদনের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দুদকের (দুর্নীতি দমন কমিশন) আইনজীবী খুরশীদ আলম খান।

তিনি জানান, ‘আবেদনের একটি কপি আমাদের সরবরাহ করা হয়েছে। আবেদনে দুদকের দায়ের করা মামলাটি বাতিল চাওয়া হয়েছে এবং তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির বৈধতা চ্যালেঞ্জ করা হয়েছে। অবকাশের মধ্যেই বা ছুটি শেষে আবেদনের ওপর শুনানি হতে পারে।’

প্রসঙ্গত, ২০০৮ সালে দুদকের করা এক মামলায় ১৭ এপ্রিল ঢাকা মহানগরের জ্যেষ্ঠ বিশেষ জজ মো. কামরুল হোসেন মোল্লা কুসিক মেয়রের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন। একই সঙ্গে তার মালামাল জব্দের জন্যও আদেশ দেন আদালত। সাক্কুর বিরুদ্ধে দুদকের অভিযোগপত্র আমলে নিয়ে আদালত এমন আদেশ দেন।

২০০৮ সালের ৭ জানুয়ারি দুদকের সহকারী পরিচালক শাহীন আরা মমতা বাদী হয়ে সাক্কু ও তার স্ত্রী আফরোজা জেসমিনের বিরুদ্ধে জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জন ও তথ্য গোপনের অভিযোগে রমনা থানায় মামলা করেন। দীর্ঘ আট বছর তদন্ত শেষে ২০১৬ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি দুদকের সহকারী পরিচালক নুরুল হুদা আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

অভিযোগপত্রে সাক্কুর বিরুদ্ধে এক কোটি ১২ লাখ ৪০ হাজার ১২০ টাকার তথ্য গোপনের অভিযোগ প্রাথমিকভাবে প্রমাণিত হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়। এছাড়া চার কোটি ৫৭ লাখ ৭৩ হাজার ৯৩৩ টাকা জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগ আনা হয়।

৩০ মার্চ কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র হিসেবে নির্বাচিত হন মনিরুল হক সাক্কু।

error: দুঃখিত কুমিল্লার বার্তার কোন কনটেন্ট কপি করা যায় না।