শিরোপা ঘরে তুলতে মরিয়া কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স

নিজস্ব প্রতিবেদক ● রাজা রাজ্য হারালেও তার রাজত্ব থেকে যায়। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) তৃতীয় আসরে প্রবাদ বাক্যটি নতুন করে মনে করিয়ে দেন মাশরাফি বিন মতুর্জা। তৃতীয় আসরে দলবদল করে নতুন ঠিকানা গড়লেও প্রবাদ বাক্যের মতো নিজেকে প্রমাণ করেন মাশরাফি। প্রথম দুই আসরের মতো তৃতীয় আসরেও বিপিএলের শিরোপা নিজের হাতে রাখেন জাতীয় দলের ওয়ানডে অধিনায়ক।

প্রথমবার বিপিএলে অংশ নিয়েই মাশরাফির নেতৃত্বে শিরোপা জয়ের স্বাদ পায় কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। বিপিএলের এরআগের দুই আসরে ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটর্সের হয়ে শিরোপা জেতেন মাশরাফি।

বিপিএলের তৃতীয় আসর দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করে কুমিল্লা। টুর্নামেন্টে নিজেদের প্রথম আসরেই মাশরাফি বিন মুর্তজাকে দলে ভেড়ায় কুমিল্লার ফ্র্যাঞ্চাইজি। প্রথম আসরেই তাদের বাজিমাত। নেতা মাশরাফির হাত ধরে শিরোপা জেতে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। চতুর্থ আসরেও মাশরাফিকে রেখে দেয় দলটি। কিন্তু সেবার মুদ্রার উল্টো পিঠ দেখতে হয় মাশরাফিকে। অনেক নামীদামী ক্রিকেটার নিয়ে দল গড়লেও মুখ থুবড়ে পড়ে কুমিল্লা। পয়েন্ট তালিকায় ষষ্ঠ অবস্থানে থেকে চতুর্থ আসর শেষ করতে হয় তাদের।

চতুর্থ আসরের ব্যর্থতার পর টনক নড়ে কুমিল্লার ফ্র্যাঞ্চাইজির। নিজেদের হারানো মুকুট ফিরে পেতে পঞ্চম আসরের জন্য আট-ঘাট বেঁধেই মাঠে নেমেছে দলটি। পঞ্চম আসরকে সামনে রেখে গড়েছে শক্তিশালী এবং তারকাখচিত দল, লক্ষ্য শিরোপা পুনরুদ্ধার করা। পেশাদারিত্বের কারণে মাশরাফিকে ছেড়ে দিয়ে আইকন প্লেয়ার হিসেবে জাতীয় দলের ড্যাশিং ওপেনার তামিম ইকবালকে দলে ভেড়ায় তৃতীয় আসরের চ্যাম্পিয়নরা।.

হারানো মুকুট ফিরে পাওয়ার এই লড়াইয়ে কুমিল্লাকে পথ দেখাবেন তামিম। পুরনোদের মধ্যে ইমরুল কায়েস, লিটন কুমার দাস, মারলন স্যামুয়েলস ও মোহাম্মদ সাইফুদ্দিনকে রেখে দিয়েছে দলটি। কোচের দায়িত্বে থাকবেন স্থানীয় কোচ মোহাম্মদ সালাউদ্দিন। তৃতীয় আসরে তার তত্ত্ববধানেই শিরোপার স্বাদ নিয়েছিল কুমিল্লা। শনিবার অনুষ্ঠিত প্লেয়ার ড্রাফটের আগে বেশ কয়েকজন অভিজ্ঞ বিদেশি ক্রিকেটারকে নিজেদের দলে ভিড়িয়েছে কুমিল্লা।

প্লেয়ার ড্রাফটের আগে দলে ভেড়ানো ক্রিকেটারদের মধ্যে রয়েছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের ড্যারেন ব্র্যাভো, ইংল্যান্ডের জস বাটলার, পাকিস্তানের হাসান আলী, ফাহিম আশরাফ, ইমরান খান জুনিয়র, শোয়েব মালিক, ফখর জামান, আফগানিস্তানের মোহাম্মদ নবী, রশিদ খান, শ্রীলঙ্কার অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস ও নিউজিল্যান্ডের কলিন মুনরো।

শনিবার অনুষ্ঠিত প্লেয়ার ড্রাফটে আরও দু’জন বিদেশি ক্রিকেটারকে দলে ভিড়িয়েছে কুমিল্লা। তারা হলেন জিম্বাবুয়ের সলোমন মির এবং পাকিস্তানের রুম্মন রইস খান। প্লেয়ার ড্রাফটে থাকা ১৪০ দেশি ক্রিকেটারের মধ্য থেকে আরও সাতজনকে দলে ভিড়িয়েছে কুমিল্লা। এই সাতজনের মধ্যে রয়েছেন আল আমিন হোসেন, আরাফাত সানি, অলোক কাপালি, মেহেদী হাসান, মেহেদী হাসান রানা, এনামুল হক ও রকিবুল হাসান।.

২০১৫ সালের বিপিএলে কুমিল্লার হয়ে খেলেছেন আহমেদ শেহজাদ, নুয়ান কুলাসেকারা, সুনীল নারাইন, আন্দ্রে রাসেল, মারলন স্যামুয়েলস, শোয়েব মালিক, ক্রিশমার সান্টোকির মতো বিদেশি তারকারা। দেশিদের মধ্যে ছিলেন আবু হায়দার রনি, অলোক কাপালি, ধীমান ঘোষ, ইমরুল কায়েস, কামরুল ইসলাম রাব্বি, লিটন কুমার দাস, শুভাগত হোম ও সানজামুল ইসলাম। তৃতীয় আসরের ফাইনালে কুমিল্লার প্রতিপক্ষ ছিল বরিশাল বুলস। ১৫৭ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শেষ ওভারে কুমিল্লার দরকার ছিল ১৩ রান। ইনিংসের একদম শেষ বলে কুমিল্লার জয় নিশ্চিত করে মাঠ ছাড়েন অলোক কাপালি। ৩৯ রান করে অপরাজিত থাকেন তিনি।

চতুর্থ আসরে পুরনোদের মধ্য থেকে আহমেদ শেহজাদ, নুয়ান কুলাসেকারা, মারলন স্যামুয়েলস, ইমরুল কায়েস ও লিটন দাসকে দলে রেখে দেয় কুমিল্লা। এই আসরে রশিদ খান, জেসন হোল্ডার, রোভম্যান পাওয়েল, সোহেল তানভীর, খালিদ লতিফ, ইমাদ ওয়াসিম এবং আশার জাইদিকে দলে ভেড়ায় মাশরাফির দল। এছাড়া দেশি ক্রিকেটারদের মধ্য থেকে কুমিল্লার হয়ে খেলেন মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন, মোহাম্মদ শরিফ, নাহিদুল ইসলাম, নাবিল সামাদ, নাজমুল হোসেন শান্ত ও সৈকত আলী। কিন্তু শক্তিশালী দল গড়েও প্রথম পাঁচ ম্যাচের একটিতেও জয়ের দেখা পায়নি দলটি।.

নিজেদের ষষ্ঠ ম্যাচে গিয়ে রাজশাহী কিংসের বিপক্ষে প্রথম জয়ের স্বাদ পায় তারা। এর পরের দুই ম্যাচেই যথাক্রমে চিটাগং ভাইকিংস এবং ঢাকা ডায়নামাইটসের বিপক্ষে পয়াজয়ের স্বাদ পায় তারা।

তবে নিজেদের শেষ চার ম্যাচের চারটিতেই জয় তুলে নেয় মাশরাফি দল। কিন্তু তাতেও লাভ হয়নি। ১২ ম্যাচে পাঁচ জয় এবং সাত পরাজয়ে পয়েন্ট তালিকার ষষ্ঠ অবস্থানে থেকে চতুর্থ আসর শেষ করতে হয় কুমিল্লাকে।

চতুর্থ আসরের এই ব্যর্থতা কাটিয়ে এবার ঘুরে দাঁড়াতে চায় নিজেদের প্রথম আসরেই চমক দেখানো ভিক্টোরিয়ান্সরা। শিরোপা পুনরুদ্ধারের লক্ষ্য সামনে নিয়েই মাঠে নামছে তামিম ইকবালের নেতৃত্বাধীন কুমিল্লা। সেই লক্ষ্যেই অভিজ্ঞ এবং টি-টোয়েন্টিতে কার্যকরী ক্রিকেটারদের দলে ভিড়িয়েছে তারা।

error: দুঃখিত কুমিল্লার বার্তার কোন কনটেন্ট কপি করা যায় না।