ম্যাচ প্রতি কুমিল্লা থেকে ১৬ লাখ পাবেন বাটলার

নিজস্ব প্রতিবেদক ● বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) পঞ্চম আসর শুরু হবে ৩ নভেম্বর। ইতোমধ্যে বিপিএলে অংশগ্রহনকারী সাত দলই সেরে ফেলেছে তাদের ঘর গোছানোর কাজ। প্রকাশ হয়েছে ফিকশ্চার, ভেন্যুও। এখন শুধু অপেক্ষা ময়দানি লড়াইয়ের। বিপিএলের নিলামের আগে সবার মনে আগ্রহ ছিল, ঢাকা-চট্টগ্রাম-রাজশাহী, নাকি রংপুর-সিলেট-কুমিল্লা; কার দলটি সবচেয়ে বেশি শক্তিশালী হচ্ছে। তবে নিলামের পরে বিষয়টি একেবারে পরিষ্কার হয়ে গেছে।

দল গঠন প্রক্রিয়া শেষে কাগজে-কলমে এক নম্বর দল হিসেবে ঢাকা ডায়নামাইটসকেই ভোট দেয়া যায়।  বিশ্বের অন্যতম সেরা টি-টোয়েন্টি স্পেশালিষ্ট সাকিব ঢাকার অন্যতম প্রাণশক্তি। সাথে কুমরা সাঙ্গাকারা, শেন ওয়াটসন, শহিদ আফ্রিদি, সুনীল নারিন আর মোহাম্মদ আমিরের মত বিশ্বমানের পারফরমার যে দলে, সে দলকে সবার ওপরে রাখা ছাড়া আসলে উপায়ও নেই।

তারপর কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স, খুলনা টাইটান্স, রাজশাহী, সিলেট ও রংপুর। চিটাগং ভাইকিংস তুলনামূলক পেছনে। এতো গেল, দলগুলোর শক্তি ও সামর্থ্যের প্রসঙ্গ।

এবার আসা যাক পারিশ্রমিক নিয়ে আলোচনায়। সবচেয়ে বেশি টাকা পাচ্ছেন কোন কোন ক্রিকেটার? আগেই জানা এ প্লাস ক্যাটাগরি বা আইকন ক্রিকেটার হিসেবে থাকা সাত দেশি ক্রিকেটার বাকিদের চেয়ে বেশি পাবেন।

সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহীম, মাশরাফি ও মাহমুদউল্লাহ- এই পাঁচজনের পারিশ্রমিক গড়পড়তা ৫০ লাখের মত। আর অন্য দুই আইকন সাব্বির রহমান রুম্মন ও সৌম্য সরকারের পারিশ্রমিক ৪০ থেকে ৪৫ লাখ টাকার মত।

তবে এটা বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের বেঁধে দেয়া মূল্য। কোন ফ্র্যাঞ্চাইজি তাদের এর চেয়ে কম টাকায় দলে ভেড়াতে পারেনি; কিন্তু সেটাই শেষ কথা নয়। এর বাইরেও কথা আছে। ভেতরের খবর হচ্ছে, বিশ্বের অন্যতম সেরা টি-টোয়েন্টি স্পেশালিস্ট ও বিশ্বের বিভিন্ন লিগ মাতানো সাকিব আল হাসান বাস্তবে তার দ্বিগুণ কিংবা তারও বেশি অর্থ পাচ্ছেন। সাকিব একা নন। তামিম ইকবাল আর মুশফিকুর রহীমও মোটা অংকের অর্থ পাচ্ছেন। এই তিনজনের সত্যিকার পারিশ্রমিক গড়পড়তা প্রায় এক কোটি টাকা কিংবা তারও বেশি। আর মাশরাফি ও মাহমুদউল্লাহর সত্যিকার মূল্য ৭০ থেকে ৮০ লাখ টাকার মধ্যে।

দেশের ক্রিকেটের পাঁচ শীর্ষ তারকা আসলে কত পেয়েছেন? বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের বেঁধে দেয়া ৫০-৫৫ লাখ টাকায় তাদের দলে টানা সম্ভব হয়েছে কি না? এ প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে গিয়েই বেরিয়ে এসেছে মূলতঃ আয়করের বিষয়টি মাথায় রেখেই আইকন ও বিদেশি ক্রিকেটারদের প্রকৃত পারিশ্রমিকের মূল্য অপ্রকাশিত থেকে যাচ্ছে।

খুব স্বাভাবিক প্রক্রিয়া, যার পারিশ্রমিক যত বেশি, আনুপাতিক হারে তার আয়করের পরিমানও তত বেশি। তাই কম-বেশি সব ক্রিকেটারই তার সত্যিকার পাওনার কথা চেপে যাচ্ছেন; কিন্তু নির্ভরযোগ্য সুত্রে নিশ্চিত হওয়া গেছে, আইকন ক্রিকেটারের মধ্যে সাকিব, তামিম, মুশফিক, মাশরাফি ও মাহমুদউল্লাহর কেউই শেষ পর্যন্ত ওই ৫০-৫৫ লাখ টাকায় চুক্তিবদ্ধ হননি।

আইকন কিংবা এ প্লাস ক্যাটাগরির পারফরমার- যাই বলা হোক না কেন, সাকিব আল হাসানকে ধরে রাখতে ঢাকা ডায়নামাইটস ফ্র্যাঞ্চাইজিকে কোটি টাকার ওপরে গুণতে হয়েছে।

প্রসঙ্গতঃ সাকিব এর আগেরবারও আইকন ক্রিকেটার হিসেবে ৫৫ লাখ টাকার সাথে একটি দামি গাড়ী উপহার পেয়েছিলেন ঢাকা ডায়নামাইটসের কাছ থেকে। যার যোগফল ছিল প্রায় ৯০ লাখ টাকা। খুব স্বাভাবিকভাবেই এবার তার মূল্য ২০ লাখের মত বেড়ে দাঁড়িয়েছে।

এদিকে আরেকটি হিসেব মতে, ঢাকা ডায়নামাইটসের অস্ট্রেলিয়ান অলরাউন্ডার শেন ওয়াটসন আর কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের ইংলিশ ব্যাটসম্যান কাম উইকেটকিপার জস বাটলারই এবারের বিপিএলে গড়-পড়তা সবচেয়ে বেশি অর্থ পাচ্ছেন। এদের পেতে ঢাকা ও কুমিল্লা ফ্র্যাঞ্চাইজিদের ম্যাচ পিছু ১৫ থেকে ১৬ লাখ টাকা করে গুণতে হবে।

এছাড়া ঢাকার অপর তিন বিদেশি সুনীল নারিন, কুমারা সাঙ্গাকারা আর আফ্রিদির পেছনেও যাবে অনেক টাকা। এদের মধ্যে শেন ওয়াটসন ম্যাচ প্রতি ১৬ লাখ টাকা (১৮,৭৫০ মার্কিন ডলার) করে নেবেন। সাঙ্গাকারা ও সুনিল নারিনও ১১-১২ লাখ টাকার মত পাবেন।

অন্যদিকে কুমিল্লার ইংলিশ রিক্রুট জস বাটলারের পারিশ্রমিকও শেন ওয়াটসনের মত। তার মানে ওয়াটসন ও বাটলার সেমিফাইনালের আগে সব ম্যাচ খেললে গড়ে পৌনে দুই কোটি টাকা করে পাবেন।

error: দুঃখিত কুমিল্লার বার্তার কোন কনটেন্ট কপি করা যায় না।