মুরাদনগরে জোড়া খুনের ঘটনায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি

নিজস্ব প্রতিবেদক ● মুরাদনগর উপজেলার নবীপুর পশ্চিম ইউনিয়নের রহিমপুর গ্রামের ফারুক মিয়া ও সাইদুল হোসেন খুনের ঘটনায় আরো ৩ আসামী রবিবার দুপুরে কুমিল্লার ৮নং আমলী আদালতে হাজির হলে বিচারক তাদের কারাগারে প্রেরন করার নির্দেশ দেন।

একই সাথে উক্ত মামলায় রিমান্ডে থাকা ২ আসামী ঘটনার সাথে জড়িত থাকার স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে।

জানা যায়, উক্ত ঘটনার এজহারনামীয় আসামী রহিমপুর গ্রামের মৃত নব আলী ওরফে আড়াই মিয়ার ছেলে আলা উদ্দিন (৩৫), বাতেন মিয়ার ছেলে শাহআলম (৩২) ও রৌশন মিয়ার ছেলে আবু মুছা (২৭) রোববার দুপুরে কুমিল্লার ৮নং আমলী আদালতে হাজির হয়ে আত্মসমর্পন করে। তখন বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট ফাহাদ বিন আমিন চৌধুরী তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

এজাহার নামীয় আসামী আনিস মিয়া (২৯) ও খোকন মিয়াকে (৪৫) শনিবার বিকালে কুমিল্লার আদালতে হাজির করা হয়। তখন বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট নাজমুন্নাহার সুমির নিকট স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করে। পরে তাদেরকে কুমিল্লার কেন্দ্রিয় কারাগারে প্রেরণ করা হয়। কুমিল্লার ৮নং আমলী আদালতের বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট ফাহাদ বিন আমিন চৌধুরী গত বৃহস্পতিবার তাদেরকে ২ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছিল। রিমান্ড থাকাকালে পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে তারা উক্ত ঘটনার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে এবং ম্যাজিষ্ট্রেটের নিকট স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেওয়ার ইচ্ছা পোষন করে। বিষয়টি নিশ্চিত করেন মুরাদনগর থানার ওসি (তদন্ত) ও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা হাবিবুর রহমান। তিনি বলেন, পলাতক অপর আসামীদের গ্রেফতার করার জন্য পুলিশ সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

উল্লেখ্য, আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে গত মঙ্গলবার রাতে ফারুক মিয়া (২৯) ও সাইদুল হোসেন (২২) নামের দু’যুবক নিহত হয়।

error: দুঃখিত কুমিল্লার বার্তার কোন কনটেন্ট কপি করা যায় না।