ব্রাহ্মণপাড়ায় সুদের টাকা পরিশোধ করতে না পেরে আত্মহত্যা

ব্রাহ্মণপাড়া প্রতিনিধি ● দাদন ব্যবসায়ীর কাছ থেকে ৪ হাজার টাকা ঋণ নিয়ে প্রতি মাসে লাভের টাকা সময় মত পরিশোধ করতে না পারায় বিষপানে আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছে তিন সন্তানের জনক এক রিক্সা চালক।

ঘটনাটি ঘটেছে জেলার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার বেড়াখলা দক্ষিণপাড়া গ্রামে।

সরেজমিন এলাকাঘুরে জানা যায়, বেড়াখলা দক্ষিণপাড়া গ্রামের আবদুর রহিমের ছেলে রিক্সা চালক মোঃ নাছির (৩৪) গত তিন মাস পূর্বে পাশ্ববর্তী সিদলাই দক্ষিণপাড়া ৯নং ওয়ার্ডের সিরু মিয়ার ছেলে দাদন ব্যবসায়ী মোঃ হাসেমের কাছ থেকে ৪ হাজার টাকা চড়া সুদে ঋণ নেয়। অভাবের তাড়নায় প্রতি হাজারে ৮শত টাকা লাভ দিবে বলে রিক্সা চালক দাদন ব্যবসায়ী হাসেমের কাছ থেকে টাকা নেয়।

তিন মাসের মধ্যে লাভের ১৯শত টাকা পরিশোধ করার পর রিক্সা চালক লাভের বাকী টাকা পরিশোধ করতে ব্যর্থ হওয়ায় সোমবার সকাল ৭টায় হাসেম রিক্সা চালকের বাড়িতে যেয়ে বিকাল ৩টার মধ্যে তার লাভের বাকী টাকা পরিশোধ না করলে তার এবং তার ভাই ও ভাগিনার তিনটি রিক্সা আটকসহ তার স্ত্রীকে নির্যাতন করার হুমকী দেয়।

এ বিষয়টি রিক্সা চালক নাছির সহজ ভাবে মেনে নিতে পারেনি বিধায় নিরুপায় হয়ে সকাল ৯টায় সে বাড়ির পাশে স্কুলের সামনে কাকড়া মারার ঔষধ পান করে অসুস্থ্য হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। বাড়ির লোকজন তার মুখ দিয়ে ফেনা বের হতে দেখে তাকে পাশ্ববর্তী গ্রাম সুলতানপুর মফিজ ডাক্তারের কাছে নিয়ে যায়।

সেখানে চিকিৎসার কিছুক্ষনপর সে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে। সকাল ১০টায় তার লাশ বাড়িতে নিয়ে আসলে তার স্ত্রী পারভীন আক্তার, এক ছেলে ও দুই মেয়েসহ বাড়ির লোকজন কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে।

খবর পেয়ে ব্রাহ্মণপাড়া থানার ওসি এসএএম শাহজাহান কবিরের নির্দেশে দুপুরে থানার এসআই আবদুল হান্নান ও সঙ্গীয় ফোর্স ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে লাশের প্রাথমিক সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করে লাশ ময়নাতদন্তের জন্যে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। এসময় ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলেন সিদলাই ইউপি চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন মুহাম্মদ ও ঐ ওয়ার্ডের মেম্বার আলী ইমাম।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত নিহতের স্ত্রী বাদী হয়ে আত্মহত্যার প্ররোচনায় থানায় মামলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছে।

error: দুঃখিত কুমিল্লার বার্তার কোন কনটেন্ট কপি করা যায় না।