বিপুল পরিমান সেমাই গোমতী নদীতে ফেলে ধ্বংশ

বুড়িচং প্রতিনিধি ● বুড়িচং উপজেলার দেবপুর বাজার এলাকায় এন.কে ফুট প্রোডাক্ট নামে একটি কারখানায় অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে তৈরী হচ্ছে নিন্মমানের সেমাই, চানাচুর, বিস্কুট, চমচম, মুরালীসহ বিভিন্ন খাদ্য পণ্য। এমন সংবাদে বৃহস্পতিবার দুপুরে বুড়িচং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফজলুল জাহিদ পাভেল ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে নগদ ৪০ হাজার টাকা জরিমানা ও বিপুল পরিমান সেমাই ধ্বংশ করেছ।

জানা যায়, বুড়িচং উপজেলার ময়নামতি ইউনিয়নের দেবপুর বাজারের ২শ’গজ দক্ষিনে কুমিল্লা সিলেট মহাসড়কের পূর্ব পার্শ্বে অবস্থিত এন.কে ফুট প্রোডাক্ট নামে একটি কারখানায় দীর্ঘদিন যাবত অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে নিন্ম মানের সেমাই, চানাচুর, বিস্কুট, চমচম, মুরালীসহ বিভিন্ন খাদ্য পন্য তৈরী করে আসছে। এই নিন্ম মানের পণ্যগুলি বিভিন্ন নামিদামী ব্যান্ডের প্যাকেটে করে সরবরাহ করা হচ্ছে কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার বুড়িচং সদর বাজার, কংশনগর বাজার, দেবপুর বাজার, ময়নামতি বাজার, ক্যান্টনমেন্ট, নিমসার বাজার, কাবিলা বাজার। এছাড়া জেলার ব্রাহ্মণপাড়া, দেবিদ্বার, বড়ুয়া, চান্দিনাসহ বিভিন্ন উপজেলায়। আর এই অসাস্থ্যকর খাদ্য খেয়ে অসুস্থ্য হয়ে পড়ছে অনেকেই। এ সংবাদের ভিত্তিতে গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা ১২ টায় বুড়িচং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফজলুল জাহিদ পাভেলের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমান আদালত অভিযান চালায়। ভ্রাম্যমান আদালত কারখানাটিতে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ, নিন্মমানের পন্য, মেয়াদ লেভেল না থাকা, শ্রমিকদের পোশাক ও গ্লাভস না পড়ার অভিযোগে কারখানার মালিককে ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করে নগদ আদায় করে। ভ্রাম্যমান আদালত এসময় কারখানাটিতে থাকা বিপুল পরিমান সেমাই গোমতী নদীতে ফেলে ধ্বংশ করে। পাশাপাশি পরিস্কার পরিচ্ছন্ন ভাবে বি.এস.টি আই নিয়মনুযায়ী উৎপাদনের জন্য নির্দেশ প্রদান করে এবং আগামী ৭ দিন পর আবারো অভিযান পরিচালনা করার হবে বলে জানান। এদিকে দেবপুর বাজার এলাকায় একটি মুড়ি কারখানায় অভিযান চালিয়ে ৫ হাজার টাকা জরিমানা ও রামপুর মেইল গেইট এলাকায় দু’টি হোটেলকে ২ হাজার ৫ শত টাকা জরিমানা করে তা আদায় কারা হয়। এসময় দেবপুর পুলিশ ফাঁড়ীর এ এস আই সোহেলসহ সঙ্গীয় ফোর্স উপস্থিত ছিলেন।