বিএনপি ছাড়লেন সাবেক এমপি আনোয়ারুল আজিম

নিজস্ব প্রতিবেদক ● ত্যাগী নেতাকর্মীদের মূল্যায়ন না করে দলের গঠনতন্ত্র-বিরোধী ‘পকেট কমিটি’ ঘোষণার প্রতিবাদে বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির (কুমিল্লা বিভাগীয়) সাংগঠনিক সম্পাদক ও কুমিল্লা-৯ (লাকসাম-মনোহরগঞ্জ) আসনের সাবেক সংসদ সদস্য কর্নেল (অব.) এম. আনোয়ারুল আজিম দল থেকে পদত্যাগ করেছেন। এছাড়াও তিনি কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি ও মনোহরগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সদস্যপদ থেকেও পদত্যাগ করেছেন।

বৃহস্পতিবার বিকেলে ঢাকার একটি ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে শতাধিক নেতাকর্মীসহ দল থেকে পদত্যাগের ঘোষণা দেন তিনি। পরে বিধি মোতাবেক পদত্যাগপত্র দলের সহ-দফতর সম্পাদকের নিকট পাঠিয়ে দিয়েছেন বলে রাতে মুঠোফোনে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কর্নেল (অব.) আজিম।

জানা যায়, আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে লাকসাম-মনোহরগঞ্জ আসনে বিএনপি ও এর অঙ্গসংগঠনের কমিটি গঠন নিয়ে আনোয়ারুল আজিমের সঙ্গে লাকসাম উপজেলা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও শিল্পপতি আবুল কালামের (চৈতী কালাম) তীব্র মতবিরোধ চলে আসছিল। এছাড়াও দলীয় মনোনয়নের বিষয়েও চৈতী কালাম দলের হাইকমান্ডের সবুজ সংকেত পেয়েছেন এলাকায় এমন গুঞ্জনও চলছে। তাই অনেকটা অভিমান করেই একসময়ের সামরিক কর্মকর্তা কর্নেল (অব.) আজিম দল থেকে পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হয়েছেন বলে তার সমর্থকরা দাবি করেছেন। অভিমানী আজিমের বক্তব্যেও এমন ইঙ্গিত পাওয়া গেছে।

পদত্যাগের বিষয়ে আনোয়ারুল আজিম রাতে সাংবাদিকদের জানান, দলের গঠনতন্ত্রের বাইরে গিয়ে ও তৃণমূল নেতাকর্মীদের মতামত না নিয়ে কোনো প্রকার সম্মেলন ছাড়াই রাতের অন্ধকারে লাকসাম উপজেলা ও পৌরসভা এবং মনোহরগঞ্জ উপজেলা যুবদল-ছাত্রদলের পকেট কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। আমি জেনেছি যুবদল ও ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটির নেতারা জেলা কমিটির নেতাদের ডেকে এনে এসব কমিটিতে স্বাক্ষর করিয়েছেন। আমি বিষয়গুলো বিএনপির হাইকমান্ডকে বারবার জানিয়েছি। কিন্তু এতে লাভ হয়নি। আর এসব পকেট কমিটি ঘোষণার পর থেকেই আমি দলের তৃণমূল ও ত্যাগী নেতাকর্মীদের কাছে বারবার প্রশ্নের মুখে পড়ছি। কিন্তু আমি তাদের কোনো উত্তর দিতে পারছি না।

তিনি আরও বলেন, যারা বিএনপিকে ভালোবেসে আমার কথায় দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ডাকে সাড়া দিয়ে আন্দোলন সংগ্রামে গিয়ে বারবার নির্যাতিত হয়েছেন, একের পর এক হামলা-মামলার শিকার হয়েছেন তারাই আজ পদবঞ্চিত। তৃণমূল ও ত্যাগী কর্মীদের মূল্যায়ন করতে পারে না যেই দল, সেই দলের কোনো পদে থাকার প্রশ্নই ওঠে না।

তিনি বলেন, ‘আমি বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক পদসহ সব পদ থেকেই পদত্যাগ করছি।’