বাহরাইনে কুমিল্লার এক যুবক নিহত

সৌরভ মাহমুদ হারুন ● বুড়িচং উপজেলার পূর্নমতি গ্রামের  সফিকুল ইসলাম (৩২) নামের বাহরাইন প্রবাসী এক যুবক সোমবার স্থানীয় সময় রাত ১০ টায় নির্মান কাজ করার সময় টাইল্স মাথায় পড়ে ঘটনাস্থলে মারা যায়। বাংলাদেশ সময় রাত ৩ টায় স্থানীয় এক প্রবাসী মো: রাসেল মিয়া মোবাইল ফোনে নিহত সফিকের আত্মীয়স্বজনকে মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে।

নিহত প্রবাসী যুবকের বাড়িতে গিয়ে জানা যায়, জেলার বুড়িচং উপজেলার সদর ইউনিয়নের পূর্ণমতি গ্রামের আব্দুর রশিদের ছেলে মো: সফিকুল ইসলাম (৩২) বৈদেশিক চাকুরি নিয়ে ২০১৩ ইং সনে বাহরাইনে যায়। বাহরাইন যাওয়ার সময় ৪ লক্ষাধিক টাকার উপর তিনি ও তার পিতা আব্দুর রশিদ ঋন করেন। বিগত ৩-৪ বছরে ঋনের টাকা পরিশোধ করেন অথচ বাড়ি ঘরের কোন উন্নয়ন করতে পারে নি। পূর্বের টিনে চৌচালা দারিদ্রের ছাপ মারা ঘর এখনো রয়েছে। জায়গা সম্পত্তি ক্রয় করার সময় হলো কোন কিছু করা আর ইতিমধ্যে সম্ভব হয় নি মো: সফিকুল ইসলামের । এর মধ্যে সর্বনাশা দূর্ঘটনায় সফিকুল ও তার পিতামাতার সকল স্বপ্ন ধুলিসাৎ হয়। সোমবার বাহরাইনের সময় রাত ১০ টায় আল হোরা এলাকায় সফিকুল ইসলাম একটি নির্মান বিল্ডিং এর কাজ করার সময় তার মাথার উপর টাইল্স পড়ে ঘটনাস্থলে তিনি মারা যান। এসময় বাংলাদেশী অপর এক স্থানীয় সফিকুল ইসলামের গ্রামের বন্ধু আব্দুল কাদের এর ছেলে মো: রাসেল মিয়া (২৪) ঘটনাটি জেনে মোবাইল ফোনে তার চাচাতো ভাই আবু হানিফ ও আত্মীয় স্বজনকে জানায়। এ খবর শোনে তার পিতা মাতা ভাই-বোন আত্মীয় স্বজনদের মাঝে শোকের কালো ছায়া নেমে আসে। মর্মান্তিক এই দূর্ঘটনায় সকাল থেকে স্বজনদের আহাজারিতে বাড়ির পরিবেশ যেন স্তব্দ হয়ে আছে। নিহত মো: সফিকুল ইসলামের ৩ ভাই ২ বোনের মধ্যে সফিকুল ইসলাম ৩য়। সফিকুলের বাবা আব্দুর রশিদ মা সফুরা খাতুন (৬০) এবং তার চাচি খোরশেদা বেগম কান্না জড়িত কন্ঠে বলেন এ বছর ছুটিতে আসলে তাকে বিয়ে করানো হতো তার জন্য পাত্রীও দেখা দেখি চলছিল। তারা এখন সফিকুলের লাশ ফেরত চান।

error: দুঃখিত কুমিল্লার বার্তার কোন কনটেন্ট কপি করা যায় না।