নাঙ্গলকোটে আ.লীগের দু’গ্রুপে সংঘর্ষ

নাঙ্গলকোট প্রতিনিধি ● নাঙ্গলকোটের ভোলাইন বাজারে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে ১০ আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এসময় ৬/৭টি ঘর ভাংচুর ও লুটপাট চালানো হয়েছে। শনিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে শুরু হয়ে বিকেল ৩টা পর্যন্ত দফায় দফায় এ সংঘর্ষ চলে। পরে নাঙ্গলকোট উপজেলা চেয়ারম্যান সামছুদ্দীন কালুর মধ্যস্থায় সংঘর্ষ বন্ধ হয়েছে। এ ঘটনা মীমাংসার জন্য শনিবার সন্ধ্যা ৮টায় উভয়পক্ষকে নিয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান বলে জানা গেছে।

স্থানীয়রা জানায়, উপজেলার আদ্রা উত্তর ইউনিয়ন আ.লীগের সদস্য সচিব ও সাবেক ছাত্রলীগ সভাপতি মাষ্টার মোশারফ হোসেন, যুগ্ম-আহবায়ক শাহাজাহান ও ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতি ইয়াহিয়ার উপর শুক্রবার (১৪ জুলাই) সন্ধ্যায় অর্তকিত হামলা করে আদ্রা দক্ষিণ ইউনিয়ন ছাত্রলীগ নেতা এলিন ভূট্টু ও আওয়ামীলীগ নেতা আবদুল মুমিনসহ কয়েকজন। এ ঘটনায় ক্ষুদ্ধ হয়ে আজ শনিবার (১৫ জুলাই) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে মাষ্টার মোশারফ হোসেনের সমর্থক ও একই ইউনিয়নের যুগ্ম-আহবায়ক এ্যাড. আবদুর রহমানের সমর্থকরা একত্রিত হয়ে ভোলাইন গ্রামে হামলা চালিয়ে গ্রাম আ.লীগের সভাপতি আবদুর রাজ্জাক, আ.লীগ কর্মী আবদুল মান্নান, আদ্রা দক্ষিণ ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতি রুবেলের ঘরসহ অন্তত ৬-৭টি বাড়ী ঘরে ভাংচুর করে এবং লুটপাট চালায়। এছাড়াও ভোলাইন বাজারের মিজান টেলিকম ও মান্নানের চা দোকানে ভাংচুর করে। এসময় আদ্রা দক্ষিণ ইউনিয়ন আ’লীগ আহবায়ক লোকমান হোসেন, আ.লীগ নেতা আবদুর রাজ্জাক, আ.লীগ কর্মী আবদুল মান্নান, আবদুল মোমিন, মরিয়ম বেগম ও কাঠ মিস্ত্রি দেলোয়ার হোসেনসহ বিভিন্ন দেশীয় অস্ত্রের কোপে নারী শিশুসহ অন্তত ১০জন আহত হয়েছে। আহতদের জেলার লাকসাম ও নাঙ্গলকোটের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

এরপর ভোলাইন গ্রামের আ’লীগ সভাপতি আবদুর রাজ্জাকসহ অপর পক্ষ অবস্থান নিলে কয়েক দফায় ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়।

এ বিষয়ে আদ্রা দক্ষিণ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের আহবায়ক লোকমান হোসেন বলেন, গতকাল শুক্রবার (১৪ জুলাই) সন্ধ্যায় মাষ্টার মোশারফের সাথে আমাদের ছেলেদের বাকবিতন্ডা হয়েছে শুনেছি। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ওরা (অ্যাডভোকেট আব্দুর রহমানের লোকজন) আমাদের উপর হামলা চালিয়েছে। পরে হামলার প্রতিবাদে আমাদের ছেলেরা জড়ো হলে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়।

জানতে চাইলে নাঙ্গলকোট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আইয়ূব বলেন, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ভোলাইন বাজার এলাকায় দু’গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ ও ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়েছে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে উভয় পক্ষকে ধাওয়া করে তাড়িয়ে দেয়। এ ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্থদের থানায় এসে অভিযোগ দেয়ার জন্য বলা হয়েছে। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তবে এখন পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।