নগদ টাকা ও স্বর্ণালঙ্কার নিয়ে প্রবাসীর স্ত্রী উধাও

নাঙ্গলকোট প্রতিনিধি ● নাঙ্গলকোটে ২ বছর বয়সী শিশু সন্তান ও নগদ টাকা স্বর্নালঙ্কার নিয়ে উধাও হয়ে গেছে এক প্রবাসীর স্ত্রী। উপজেলার ঢালুয়া ইউনিয়নের বায়রা গ্রামে মঙ্গলবার এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ওই প্রবাসী বাদী হয়ে নাঙ্গলকোট থানায় একটি সাধারণ ডাইরী (জিডি) করেছেন।

জিডি ও প্রবাসীর পরিবার সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার বায়রা গ্রামের এয়াকুব আলীর ছেলে মো. হারুনুর রশিদ ভাগ্যের চাকা ঘুরাতে পাড়ি জমায় মধ্যপ্রাচ্যের দেশ ওমানে। সেখান থেকে ছুটিতে বাড়ীতে এসে বিয়ে করেন উপজেলার ময়ূরা গ্রামের মাঈন উদ্দীনের মেয়ে খালেদা আক্তারকে (২২)। তাদের সুখের সংসার আলোকিত করে তোলে তাদের শিশু কন্যা ইসরাত জাহান ইসফা (০২)। ভালোই চলছিল তাদের সংসার জীবন।

গত ঈদুল ফিতরের আগে ওমান থেকে ছুটিতে বাড়ী আসে হারুন। পরবর্তীতে তার স্ত্রীর গলার একটি স্বর্ণের চেইন খুঁজে না পাওয়াকে কেন্দ্র করে স্বামী হারুনের সাথে তার বাকবিতন্ডা হয়।

এরপর গত মঙ্গলবার (২৯ আগস্ট) সকালে হারুন ঈদের কেনাকাটা করতে ফেনীতে যায় এবং বাড়ীর অন্য সদস্যরা বেড়াতে যাওয়ার সুযোগকে কাজে লাগিয়ে গৃহবধূ খালেদা হারুনের আলমারীতে রক্ষিত আড়াই লক্ষ টাকা ও স্বর্ণালঙ্কার নিয়ে পালিয়ে যায়। সাথে তাদের ২ বছরের শিশু সন্তান ইসরাত জাহান ইসফাকে নিয়ে যায়।

পরে অনেক খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে পরদিন বুধবার (৩০ আগস্ট) প্রবাসী হারুনুর রশিদ বাদী হয়ে নাঙ্গলকোট থানায় একটি সাধারণ ডাইরী (জিডি) করেছেন। যার নং-১১০৮।

এ বিষয়ে নাঙ্গলকোট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আইয়ূব জিডির বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, গৃহবধূ খালেদা আক্তারকে খুঁজে বের করার সব রকমের চেষ্টা চলছে।

error: দুঃখিত কুমিল্লার বার্তার কোন কনটেন্ট কপি করা যায় না।