দিনমজুরের ছেলে পেল জিপিএ-৫

নিজস্ব প্রতিবেদক ● চৌদ্দগ্রাম এইচ জে মডেল হাইস্কুল থেকে একমাত্র জিপিএ-৫ পেয়েছে আবদুল হালিম নামের বিজ্ঞান বিভাগের এক ছাত্র।

সে পাশ্ববর্তী ঘোলপাশা ইউনিয়নের কোমাল্লা গ্রামের দিনমজুর ফরিদ মিয়া ও গৃহিনী রহিমা বেগমের পুত্র।

ফরিদ মিয়ার তিন মেয়ে ও দুই ছেলের মধ্যে হালিম তৃতীয়। ওই স্কুল থেকে ২’শ ৮৯ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে পাশ করেছে ১’শ ২১।

এরমধ্যে একমাত্র জিপিএ-৫ পেয়েছে আবদুল হালিম।

শনিবার সরেজমিন গিয়ে জানা গেছে, ফরিদ মিয়া অন্যের কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করেন। ছেলে আবদুল হালিমের পড়ালেখার জন্য ফরিদ মিয়া ও রহিমা বেগম সাহস জুগিয়েছেন। পরীক্ষার আগে সাত যাবৎ হালিম পৌর এলাকার শ্রীপুর গ্রামের উত্তর পাড়ায় একটি বাড়িতে লজিং থেকে পড়ালেখা করতো। সেখানে সে প্রাইভেট পড়িয়ে পড়ালেখার খরচও জোগাড় করতো।

এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পাওয়ায় খুশিতে আত্মহারা হয়েছেন হালিমের পিতা ও মাতা। অর্থনৈতিক অভাবের কারণে তারা ছেলের ভবিষ্যত পড়ালেখা নিয়ে শঙ্কিত হয়ে পড়েছেন।

ভবিষ্যতে ডাক্তার হয়ে মানুষের সেবা করতে চায় মেধাবী শিক্ষার্থী আবদুল হালিম।