দখলদারদের কবলে কুমিল্লা নগরীর ফুটপাত ও রাস্তা

নিজস্ব প্রতিবেদক ● দিন দিন দখলদারদের কবলে চলে যাচ্ছে কুমিল্লা নগরীর ফুটপাত ও রাস্তা। হকারদের দৌরাত্ম্যের পাশাপাশি রয়েছে নির্মাণ সামগ্রী ফেলে রেখে দখলের প্রবণতা। ফলে ফুটপাতে হাঁটা দায় হয়ে উঠেছে নগরবাসীর। রাস্তাগুলোয় সৃষ্টি হচ্ছে যানজট। যদিও মেয়র মনিরুল হক সাক্কু আশ্বাস দিয়ে বললেন, শিগগিরি দখলমুক্ত করতে চালানো হবে অভিযান।

৫৪ বর্গ কিলোমিটার আয়তনের কুমিল্লা সিটি করপোরেশনে বসবাস করেন প্রায় ছয় লাখ মানুষ। নগরীর ৪৮২ কিলোমিটার রাস্তার ফুটপাতের বেশির ভাগই দখলে নিয়েছেন হকাররা। নির্মাণাধীন ভবনের সামগ্রী রেখেও ফুটপাত ও রাস্তার অংশবিশেষ দখল করে রাখা হয়েছে। কান্দিরপাড়, রাজগঞ্জ, চকবাজার, মোগলটুলী, রেসকোর্স, ছাতিপট্টি, লাকসাম রোড, ইপিজেড, পুলিশ লাইন, ঝাউতলা ও বাদুরতলা সহ বিভিন্ন স্থানে একই চিত্র। এভাবে ফুটপাত দখল হয়ে থাকায় ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে পথচারীদের। মাঝেমধ্যেই ঘটছে সড়ক দুর্ঘটনা।

একজন পথচারী বলেন, ‘দোকানদার থেকে শুরু করে যে অবস্থা করে রাখছে , হাঁটারও কোনো সুযোগ নাই।’ অন্য একজন পথচারী বলেন, ‘আমাদের চলাচলের যেন সুবিধা হয়, সেজন্য যাতে ব্যবস্থা নেওয়া হয়।’

এ ব্যাপারে কুমিল্লার সদ্য নির্বাচিত মেয়র জানালেন, গেলো কয়েক মাস মেয়রের পদটি খালি থাকায় ফুটপাত দখলমুক্ত করার ব্যাপারে যথাযথ পদক্ষেপ নেয়নি সিটি করপোরেশন। শিগগিরি এ ব্যাপারে ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দিলেন তিনি। কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মনিরুল হক সাক্কু বৈশাখী অনলাইনডটকমকে বলেন, ‘বিগত তিন মাসে ইলেকশন ও ইলেকশনের পরও দুই বছর যারা উঠে নাই, এহন আমি দায়িত্ব নিছি, ইনশাল্লাহ কিছু দিনের মধ্যেই আমি আগের মতো সব দোকানপাট নিজের উদ্যোগে উঠাই দিমু।’

তবে শুধু দখলমুক্ত করাই নয়, আবারও যেন ফুটপাত বেদখল হয়ে না যায়, সে ব্যাপারেও সিটি কর্পোরেশনকে নজর রাখার অনুরোধ করেছেন নগরবাসী।

error: দুঃখিত কুমিল্লার বার্তার কোন কনটেন্ট কপি করা যায় না।