চৌদ্দগ্রাম উপজেলার নবী হোসেন ষড়যন্ত্রের স্বীকার

নিজস্ব প্রতিবেদক ● চৌদ্দগ্রাম উপজেলার উজিরপুর ইউনিয়নের জগমোহন পুর গ্রামের আবুল কাশেমের পুত্র মোঃ নবী হোসেনের বিরুদ্ধে একটি মহলের অপপ্রচার অব্যাহত রয়েছে। নবী হোসেনকে মাদক ব্যাসায়ী ও পাচারকারী আখ্যা দিয়ে কুমিল্লার কয়েকটি পত্রিকায় ভুল এবং বাস্তব বিবর্জিত সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। ওই কুচক্রী মহল সাংবাদিকদের ভুল তথ্য দিয়ে সংবাদটি প্রকাশ করায় বলে অভিযোগ করেছেন নবী হোসেন।

নবী হোসেন জানান, আমি একজন ক্ষুদ্র ব্যাবসায়ী। আমি অথবা আমার পরিবারের কেউ কখনো মাদক ব্যাবসার সাথে কখনো জড়িত ছিলাম না। আমি বিভিন্ন সময় মাদক ব্যাবসার প্রতিবাদ করায় এবং সাম্প্রতিক সময়ে জামমুড়া প্রকাশ কেকেনগর গ্রামের শীর্ষ মাদক ব্যাবসায়ী এবং প্রায় ২০টি মাদক মামলার আসামী মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেনের মাদক ব্যাবসায় বাঁধা দেওয়ায় সে আমার উপর ক্ষিপ্ত হয়ে আমার বিরুদ্ধে বিভিন্ন ভাবে অপপ্রচার করে আমাকে হেয় করার পায়তারা করছে। এছাড়াও আরও কিছু সার্থান্নেশী কুচক্রী মহল আমার মানসম্মান ও আর্থিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করতে সবসময় পায়তারা চালিয়ে যাচ্ছে। এ বিষয়ে আমি স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ ও সংশ্লিষ্ট প্রশাসনকে অবহিত করেছি।

নবী হোসেন বলেন, আমি আমার গ্রাম ও আশেপাশের এলার গরীব অসহায় মানুষদের বিপদে আপদে পাশে থাকার চেষ্টা করি। আমি সবসময় মাদকের বিরুদ্ধে সোচ্চার ছিলাম। গত কয়েকদিন ধরে কুমিল্লার কয়েকটি পত্রিকায় আমার বিরুদ্ধে হাফ ডজন মামলা রয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়। প্রকৃত পক্ষে এসব মামলা আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে পলাতক আসামী দেখিয়ে মামলাগুলো দায়ের করা হয়। বর্তমানে আমি উচ্চ আদালত থেকে জামিনে রয়েছি।

এলাকাবাসীর সাথে কথা বলেও নবী হোসেনের বিরুদ্ধে মাদক ব্যাবসার সাথে সম্পৃক্ত থাকার কোন তথ্য মেলেনি।

স্থানীয় বাসিন্দা মোঃ সিরাজুল ইসলাম সর্দার জানান, আমার জানামতে সে একজন ক্ষুদ্র ব্যাবসায়ী। এ পর্যন্ত আমি কখনো তাকে মাদক ব্যাবসার সাথে জড়িত থাকতে দেখিনি বা শুনিনি।

জামমুড়া প্রকাশ টেকেনগরের হাজী নুরুল ইসলাম মেম্বার জানান, নবী হোসেনের বিরুদ্ধে মাদক ব্যবসার যে অভিযোগ উঠেছে তা সত্য নয়। আমি কখনো কারো কাছ থেকে এমন তথ্য পাইনি।