চৌদ্দগ্রামে শিশুর চার আঙুল কাটার ঘটনায় আটক ২

চৌদ্দগ্রাম প্রতিনিধি ● চৌদ্দগ্রামের বলহরা গ্রামে নানার বাড়িতে বেড়াতে যাওয়া আড়াই বছর বয়সী শিশু আয়াজ হোসেনের বাম হাতের চার আঙুল কাটার ঘটনায় দুইজনকে আটক করেছে পুলিশ।

শুক্রবার বিকেলে তাদেরকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়।

আটককৃতরা হলো মামলার ২নং আসামি আমির হোসেন মজুমদার ও চার নং আসামি উম্মে রুমা লিপি।

চৌদ্দগ্রাম থানার এসআই হারুনুর রশীদ কুমিল্লার বার্তা ডটকমকে জানান, গত মঙ্গলবার সকালে শিশু আয়াজের হাত কাটার ঘটনায় তার নানী হাছিনা আক্তার বাদি হয়ে ঘটনার মূলহোতা উজিরপুর ইউনিয়নের বলহরা গ্রামের আশিকুর রহমান শুভ, তার পিতা আমির হোসেন মজুমদার, মা মোরশেদা বেগম ও চাচি উম্মে রুমা লিপিকে আসামি করে মামলা করেন।

পুলিশ মামলার সূত্র ধরে চট্টগ্রামের হালিশহর এলাকা থেকে আমির হোসেন মজুমদার ও বলহরা গ্রামের বাড়ি থেকে উম্মে রুমা লিপিকে আটক করে।

এর আগে প্রবল বৃষ্টির কারণে গত মঙ্গলবার সকালে বলহরা গ্রামের প্রবাসী নুরুল হক মজুমদারের বাড়ির ছাদে জমে থাকা পানি তার ছোট মেয়ে তানজিনা আক্তার পরিষ্কার করে। পরিষ্কার করার পর ছাদের পানি পাশের আমির হোসেনের উঠানে পড়ে। এ নিয়ে উভয় পরিবারের মধ্যে বাকবিতণ্ডার এক পর্যায়ে আমির হোসেনের ছেলে আশিকুর রহমান শুভ (২২) ধারালো অস্ত্র দিয়ে শিশু আয়াজের বাম হাতের চারটি আঙুল কেটে ফেলে।

এ ছাড়া আয়াজের শরীরের বিভিন্ন অংশে জখম করে। পরিবারের লোকজন আহত আয়াজকে প্রথমে কুমিল্লার একটি হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়। পরবর্তীতে আশঙ্কাজনক অবস্থায় আয়াজকে ধানমন্ডির পপুলার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অভিযুক্ত শুভ ঘটনার পর থেকে পলাতক রয়েছে।

চৌদ্দগ্রাম উপজেলার উজিরপুর ইউনিয়নের বলহরা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। আহত আয়াজ হোসেন চিওড়া ইউনিয়নের চাপিরতলা গ্রামের আনিস চৌধুরীর পুত্র। সে উজিরপুর ইউনিয়নের বলহরা গ্রামে নানা বাড়িতে বেড়াতে গিয়ে ছিল।

error: দুঃখিত কুমিল্লার বার্তার কোন কনটেন্ট কপি করা যায় না।