চৌদ্দগ্রামে যুবলীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা

চৌদ্দগ্রাম প্রতিনিধি ● চৌদ্দগ্রামে শুক্রবার রাতে হাবিবুর রহমান নামে এক যুবলীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে সন্ত্রাসীরা। তিনি উপজেলার জগন্নাথদীঘি ইউনিয়নের আতাকরা গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার হোসেনের ছেলে ও ইউনিয়ন যুবলীগের স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক। আহতের ভাবি হাজেরা বেগম বাদী হয়ে চারজনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা আরও ১২/১৫ বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

আসামিরা হলেন- দক্ষিণ সোনাপুর গ্রামের আলী এরশাদের ছেলে ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি আতিকুল ইসলাম আজাদ, আলী আকাব্বরের ছেলে মো. ইয়াছিন, কোদালিয়া গ্রামের মো. জয়নালের ছেলে ছালেহ আহমেদ সুবজ ও খিল্লাপাড়া গ্রামের মৃত তিতা মিয়ার ছেলে মো. কাসেম।

অভিযোগে জানা যায়, হাবিবুর রহমান জগন্নাদিঘি ইউনিয়নের কাকৈরখোলা কমিউনিট ক্লিনিকে স্বাস্থ্যকর্মী হিসেবে চাকরি করেন। আসামিদের সঙ্গে হাবিবের টাকা পয়সা নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। শুক্রবার রাত আটটার পরে হাবিব, তার বন্ধু এমদাদুল হক জুয়েল ও নবী হোসেনকে নিয়ে মোটরসাইকেলযোগে চৌধুরী বাজার যাচ্ছিলেন। পথে নারানকরা দক্ষিণ পাড়ায় রাস্তার উপর যুবলীগ নেতা আজাদের নেতৃত্বে আসামিরা ফাঁকাগুলি ছুড়ে তাদের গতিরোধ করে। পরে তাকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করা হয়।

চৌদ্দগ্রাম থানার ওসি (তদন্ত) শুভ রঞ্জন চাকমা জানান, হাবিবের ভাবি বাদী হয়ে একটি অভিযোগ দিয়েছে। আসামি ছালেহ আহমদ সবুজকে আটক করা হয়েছে। বাকিদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

error: দুঃখিত কুমিল্লার বার্তার কোন কনটেন্ট কপি করা যায় না।