খালেদার বিশেষ পুরস্কার পাচ্ছেন সাক্কুর স্ত্রী টিকলি!

নিজস্ব প্রতিবেদক ● কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের নবনির্বাচিত মেয়র মনিরুল হক সাক্কুর স্ত্রী আফরোজা জেসমিন টিকলির প্রশংসায় পঞ্চমুখ বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। স্বামীকে যুদ্ধ করে জিতিয়ে আনার জন্য বিশেষ পুরস্কারে ভূষিত হতে পারেন তিনি। দলের গুরুত্বপূর্ণ পদও পেতে পারেন।

দলীয় নেতাদের মতে, কুমিল্লা সিটির নির্বাচনীয় প্রচারণায় মডেল সৃষ্টি করেছেন বিজয়ী মেয়র সাক্কুর স্ত্রী টিকলি। কৌশলী প্রচারণা আর ভোটারদের দৃষ্টি আকর্ষণ করার ক্ষেত্রে নিয়ে এসেছেন ভিন্ন মাত্রা। যা ধানের শীষের প্রতীকে ভোট দেয়ার ক্ষেত্রে বড় ভূমিকা রেখেছে।

সূত্রমতে, আগামী জাতীয় নির্বাচনে ধানের শীষের বিজয় ছিনিয়ে আনার ক্ষেত্রে টিকলির এ মডেল কাজে দিতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। আর এ কারণেই দলীয় প্রধান তার প্রশংসা করেছেন। তাকে বিশেষ দায়িত্ব দেয়ার কথাও ভাবা হচ্ছে।

গত মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে নবনির্বাচিত মেয়র মনিরুল হক সাক্কু তার স্ত্রীকে নিয়ে গুলশানে চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে শুভেচ্ছা জানাতে গেলে এমন ইঙ্গিত করেন খালেদা জিয়া। সাক্কু ‘যুদ্ধ’ করে বিজয়ী হয়েছেন দাবি করে আগামীতে তার মতো নির্বাচনী যুদ্ধের জন্য নেতাদের প্রস্তুতি নিতে বলেন। চেয়ারপারসন বলেন, ‘কুমিল্লা সিটির মতো সব নির্বাচনে যুদ্ধ করে আমাদের জয় ছিনিয়ে আনতে হবে।’

এসময় মনিরুল হক সাক্কু ও তার স্ত্রী আফরোজা ইয়াসমীন টিকলী চেয়ারপারসনের হাতে ফুলের তোড়া দেন। এই বিজয়ের জন্য কুমিল্লার নাগরিকসহ ভোটার ও দলের নেতা-কর্মীদের ধন্যবাদ জানান সাক্কু।

বেগম খালেদা জিয়া সাক্কুর স্ত্রী টিকলির নির্বাচনী প্রচারণা ও বক্তব্যের প্রশংসা করেন। তাকেসহ নবীনদের নিয়ে কুমিল্লা মহানগর ও জেলা কমিটি করতে নেতাদের পরামর্শ দেন। নির্বাচনী ভোট কেন্দ্রে এজেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালনের জন্য নেতাকর্মীদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করারও তাগাদা দেন। খালেদা জিয়া বলেন, ‘লোকজনকে ট্রেনিংয়ের ব্যবস্থা করতে হবে। না হলে ওদের সাথে পারা যাবে না। আমাদের এগুলো নিয়ে কাজ করতে হবে।’

error: দুঃখিত কুমিল্লার বার্তার কোন কনটেন্ট কপি করা যায় না।