কুমিল্লা বোর্ডে খারাপ ফলাফল করা স্কুলগুলোকে শোকজ

নিজস্ব প্রতিবেদক ● এসএসসি’র ফল বিপর্যয় কাটিয়ে উঠতে নানামুখী পদক্ষেপ হাতে নিয়েছে কুমিল্লা মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড। চলতি বছরের এসএসসি পরীক্ষায় এ শিক্ষাবোর্ড থেকে খারাপ করা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোকে ইতোমধ্যেই কারণ দর্শানোর চিঠি দেয়া হয়েছে। ছাড়া তালিকা ভুক্ত প্রতিষ্ঠানগুলো সরেজমিন পরিদর্শনের মাধ্যমে সৃষ্ট সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করবে এ বোর্ড। কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ড সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, শিক্ষকদের দায়িত্বে অবহেলা, মানসম্মত শিক্ষক সঙ্কট ও সৃজনশীল পদ্ধতির উপর দুর্বলতার কারণে এবার কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের এসএসসি পরীক্ষার ফলে বিপর্যয় নেমেছে। শিক্ষার্থীদের মধ্যে গণিত ও ইংরেজি ভীতি বেশি। এ কারণে প্রায় ৩৫ ভাগ পরীক্ষার্থী গণিতে এবং প্রায় ৩০ ভাগ পরীক্ষার্থী ইংরেজি বিষয়ে অকৃতকার্য হয়েছে। পরীক্ষার্থী এই দুই বিষয়ে বেশি অকৃতকার্য হওয়ার গড় ফলাফলে প্রভাব পড়েছে। এ ছাড়া খারাপের অনুপাত শহরের চাইতে মফস্বলে বেশি।

কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আব্দুল খালেক বলেন, ’হঠাৎ কুমিল্লা বোর্ডের ফল পতিত হওয়ায় আমরা হতাশ। কারণ জানতে ও তার সমাধানে আমরা তালিকাভুক্ত বিদ্যালয়গুলোকে চিঠি দিয়েছি। তাদের জবাব আসার পর কোনো সমস্যা থাকলে মাঠ পর্যায়ে গিয়ে তা সমাধানের চেষ্টা করা হবে।’
তিনি আরও বলেন, ’ইংরেজি, গণিত ও বিজ্ঞান বিষয়ে ভালো মানের শিক্ষক সঙ্কটই ফল খারাপের মূল কারণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। ভালো শিক্ষকরা শহরমুখী হওয়ায় মফস্বল পর্যায়ে দক্ষ ও অভিজ্ঞ শিক্ষকের সঙ্কট সৃষ্টি হয়েছে।’ এ ছাড়া মডেল পদ্ধতিতে ফল মূল্যায়ন করায় ফল পতনে কিছু প্রভাব রয়েছে। বলেও মনে করেন তিনি।

গত ৪ মে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়েছে।  কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডে গত বছরের চেয়ে এবার পাসের হার কমে গেছে ২৪ দশমিক ৯৭ শতাংশ। গত বছর যেখানে পাসের হার ছিল ৮৪ শতাংশ, সেখানে এই হার নেমে এসেছে ৫৯ দশমিক ০৩ শতাংশে।

error: দুঃখিত কুমিল্লার বার্তার কোন কনটেন্ট কপি করা যায় না।