কুমিল্লা বোর্ডের সামনে বিক্ষোভ; চেয়ারম্যানের পদত্যাগ দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক ● এবছরের এসএসসি পরীক্ষায় কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ডের ফলাফল বিপর্যয়ের কারণে কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান ও পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের পদত্যাগের দাবিতে বিক্ষোভ করেছে কুমিল্লার শিক্ষার্থীরা। এর আগে মঙ্গলবার সকালে কুমিল্লা টাউনহলের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করে খাতা পুন:মূল্যায়নের জন্য শিক্ষামন্ত্রী বরাবর আবেদন জানায় তারা।

এসময় শিক্ষার্থীরা জানায়, পরীক্ষায় ফেল করবো বলে আমরা পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করিনি। অনেকেই এক নম্বরের জন্য এক বিষয়ে ফেল করেছে। কেউ আবার ঐচ্ছিক বিষয়ে ফেল করেছে। বেশীরভাগ ফলাফলেই ১-২ নম্বরের জন্য ফেল করিয়ে দেয়া হয়েছে। আমরা এই ফলাফল মানি না। এসময় ফলাফল পুন:মূল্যায়ন করার জন্য শিক্ষামন্ত্রীর নিকট অনুরোধ জানান শিক্ষার্থীরা।

কুমিল্লা বোর্ডের চেয়ারম্যান ও পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের পদত্যাগের দাবিতে বিক্ষোভ মানববন্ধন শেষে তারা কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ডের সামনে জড়ো হয়ে কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান ও পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের পদত্যাগের দাবিতে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে।

উল্লেখ্য, গত ৪ মে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফলাফলে কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ডে গত বছরর তুলনায় পাশের হার ২৪ দশমিক ৯৭ শতাংশ কমে দাড়ায় ৫৯ দশমিক ০৩ শতাংশে। ২০১৬ সালে কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ডের পাসের হার ছিল ৮৪ শতাংশ।

কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ডে এ বছর কেবল গণিতেই ফেল করেছে ৩৪ হাজার ৬শ ৮৯জন। আর ইংরেজি বিষয়ে উৎরাতে পারেনি ২৫ সহস্রাধিক শিক্ষার্থী। কুমিল্লা বোর্ডে যেখানে মোট অকৃতকার্য শিক্ষার্থী ৭৪ হাজার ৮৬৮ জন সেখানে গণিত ও ইংরেজিতেই ফেল কুমিল্লা বোর্ডের চেয়ারম্যান ও পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের পদত্যাগের দাবিতে বিক্ষোভকরেছে ৬০ হাজার ২৯৫ জন। এছাড়াও বাংলায় ফেল করেছে প্রায় ৬ হাজার শিক্ষার্থী। মূলত এ তিন বিষয়ের অকৃতকার্যতাই কুমিল্লা বোর্ডের সার্বিক ফলাফলে ভয়াবহ বিপর্যয় বয়ে এনেছে বলে মনে করছেন শিক্ষকরা। আর এসব বিষয়ে ১ থেকে ৩ নম্বরের জন্য ফেল করেছে সবচেয়ে বেশি।

error: দুঃখিত কুমিল্লার বার্তার কোন কনটেন্ট কপি করা যায় না।