কুমিল্লা নগরীর ৩টি বাস টার্মিনালে চরম দুর্ভোগ

মাসুদ আলম ● কুমিল্লা নগরীর শাসনগাছা, চকবাজার ও জাঙ্গালিয়া বাস টার্মিনাল গুলো দীর্ঘদিন ধরে বেহাল অবস্থায় রয়েছে। প্রথম দেখায় এগুলো পুকুর না টার্মিনাল তা বুঝার উপায় নেই। বাস দাঁড়াচ্ছে পানিতে, যাত্রীকেও নামতে হচ্ছে পানিতে। অনেক যাত্রী পুকুরে বাস টার্মিনাল গুলো স্থাপিত হয়েছে বলেও মন্তব্য করেন। টার্মিনাল গুলোতে পর্যাপ্ত টয়লেট সুবিধা নেই। চারদিকে শুধু কাদা পানি। এতে দুর্ভোগে পড়ছেন চালক, শ্রমিক ও যাত্রীরা। টার্মিনাল সংস্কার দাবি পরিবহন সংশ্লিষ্টদের।

এ টার্মিনাল গুলো থেকে ঢাকা, চট্টগ্রাম, রংপুর, গাইবান্ধা, কুড়িগ্রাম, রাজশাহী, ময়মনসিংহ, ফেনী, লক্ষ্মীপুর, নোয়াখালী, চাঁদপুর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, সিলেট, পার্বত্য চট্টগ্রাম, কক্সবাজার এবং কুমিল্লার বিভিন্ন উপজেলায় বাস চলাচল করে।

সূত্রে জানা গেছে, নিয়মিত সংস্কার না হওয়ায় বাস টার্মিনাল গুলোতে অসংখ্য খানাখন্দকের সৃষ্টি হয়েছে। এতে যানবাহনসহ যাত্রীসাধারণের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়। কুমিল্লা জেলা বাস-মিনিবাস মালিক সমিতি এজন্য সিটি করপোরেশনসহ সংশ্লিষ্টদের বাস টার্মিনাল এলাকার খানাখন্দক মেরামতের জন্য দাবি জানান। এরপরও কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।

নগরীর বিশিষ্টজন লেখক আবদুল আউয়াল হেনা বলেন, বাস টার্মিনাল গুলোর বেহাল দশা দীর্ঘদিনের। সেখানে গেলে মনে হয়ে কোনো নদীর ঘাটে কিছু নৌকা এসে ভিড়েছে। টার্মিনালে পানি- কাদায় চলাচলে যাত্রীদের দুর্ভোগের শেষ নেই।

কুমিল্লা জেলা বাস-মিনিবাস শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক কাজী মোতাহার হোসেন বলেন, বাস টার্মিনাল গুলো জলাশয়ে পরিণত হয়েছে। বিশেষ করে জাঙ্গালিয়া বাস টার্মিনালের সংস্কার নিয়ে আমরা দীর্ঘদিন থেকে দাবি জানিয়ে আসছি। টার্মিনালটি সংস্কার জরুরি হয়ে দাঁড়িয়েছে।

কুমিল্লা জেলা বাস মালিক সমিতির সচিব মোঃ তাজুল ইসলাম বলেন, টার্মিনাল গুলোর বেহাল অবস্থা নিয়ে আমরা প্রশাসনের বিভিন্ন পর্যায়ে যোগাযোগ করেছি। আশা করছি দ্রুত এগুলোর সংস্কার হবে।

এ ব্যাপারে কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা অনুপম বড়ুয়া বলেন, জাঙ্গালিয়া, চকবাজার ও শাসনগাছা বাস টার্মিনালে কিছু সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে। রুটিন ওয়ার্কের আওতায় এগুলোর তাৎক্ষণিক কিছু সংস্কার কাজ করা হবে।

error: দুঃখিত কুমিল্লার বার্তার কোন কনটেন্ট কপি করা যায় না।