কুমিল্লা-কোটবাড়ি সড়ক বেহাল

নিজস্ব প্রতিবেদক ● কুমিল্লা-কোটবাড়ি সড়কের মহানগরীর টমছম ব্রিজ এলাকায় সড়কের জায়গা দখল করে গড়ে উঠা একটি বাজারের কারণে জনদুর্ভোগ চরম আকার ধারণ করেছে। এ সড়কের বিভিন্ন স্থানে ইট-সুরকি উঠে গিয়ে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে।

সরেজমিন ঘুরে জানা যায়, কুমিল্লা নগরীর গুরুত্বপূর্ণ এলাকা টমছম ব্রিজ হতে কোটবাড়ি পর্যন্ত প্রায় আট কিলোমিটার সড়ক। এ সড়কের মাঝামাঝি অংশের নন্দনপুর এলাকা হয়ে বয়ে গেছে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক। এদিকে কুমিল্লা শহরের টমছম ব্রিজ থেকে কোটবাড়ি পর্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এ সড়কটি দীর্ঘদিন ধরে সংস্কারের অভাবে বিভিন্ন স্থানের ইট-সুরকি উঠে গিয়ে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হওয়ায় যানবাহনসহ জনগণের স্বাভাবিক চলাচল বিঘ্নিত হচ্ছে।

কুমিল্লা-কোটবাড়ি সড়কপথে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়, পল্লী উন্নয়ন একাডেমি, কুমিল্লা পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট, টিচার্স ট্রেনিং ইন্সটিটিউট, সিসিএন বিশ্ববিদ্যালয়, কুমিল্লা সেনানিবাস, বিজিবি সেক্টর হেডকোয়ার্টার, কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া ডিগ্রি কলেজ, র্যাব কার্যালয়, কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ড মডেল কলেজ, সার্ভে ইন্সটিটিউট, পানি উন্নয়ন বোর্ড, আনসার-ভিডিপি আঞ্চলিক কার্যালয়, প্রাণিসম্পদ কার্যালয় এবং অনেক সরকারি-বেসরকারি শিক্ষা ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারী ছাড়াও শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ শহর ও জেলার পশ্চিমাঞ্চলের বিভিন্ন এলাকার মানুষ যাতায়াত করে থাকেন। এছাড়া ময়নামতি জাদুঘর, শালবন বিহারসহ কোটবাড়িস্থ বিভিন্ন পর্যটন স্থাপনায় দূর-দূরান্তের পর্যটকদের আসা-যাওয়ার ক্ষেত্রেও সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

এদিকে শহরের প্রবেশপথের টমছম ব্রিজ এলাকার ব্রিজ হতে শাকতলা সার্ভে ইন্সটিটিউট পর্যন্ত সড়কের দুই পাশে রাজনৈতিক ছত্রচ্ছায়ায় অবৈধভাবে দখল করে গড়ে তোলা হয়েছে কাঁচাবাজারসহ দুই শতাধিক  দোকানপাট। প্রতিদিন ভোর থেকে দুপুর পর্যন্ত এ বাজারে ক্রেতাদের সমাগম ঘটে।

স্থানীয়রা জানায়, সড়কের জায়গায় অবৈধভাবে গড়ে উঠা বাজারের এসব দোকানপাট মোটা অঙ্কের টাকা সেলামি নিয়ে মাসিক ভাড়া আদায় করছে স্থানীয় একাধিক প্রভাবশালী সিন্ডিকেট। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন ব্যবসায়ী জানান, সেলামি দিয়ে দোকান ভাড়া নিয়েছি, মাস শেষ না হতেই ভাড়া পরিশোধ করতে হয়।

এ বিষয়ে সড়ক ও জনপথ কুমিল্লার নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিন জানান, চাঁপাপুর থেকে টমছম ব্রিজ হয়ে কোটবাড়ি পর্যন্ত সড়কটি ফোর লেনে উন্নীত করার প্রস্তাবনায় রয়েছে। বর্তমানে অতিবৃষ্টির কারণে সড়কটি সংস্কার করা যাচ্ছে না। সড়কের জায়গায় বাজার ও দোকানপাটের বিষয়ে তিনি জানান, ফোর লেনের কাজ শুরু হলে এমনিতেই বাজারটি উচ্ছেদ হয়ে যাবে।

error: দুঃখিত কুমিল্লার বার্তার কোন কনটেন্ট কপি করা যায় না।