কুমিল্লায় বিদেশে কাজ দেওয়ার নামে প্রতারণা

নিজস্ব প্রতিবেদক ● কুমিল্লা সদর উপজেলার ময়নামতি সেনানিবাস সংলগ্ন সাহেবনগর এলাকায় বিদেশে নিয়ে চুক্তিমোতাবেক কাজ না দেওয়ার ওমর ফারুক নামের এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এঘটনায় ভূক্তভোগী টাকা ফেরত নাইলে তার স্ত্রীকে কৌশলে বাড়িতে ডেকে মারধোর এবং ঘটনা নিয়ে বাড়াবাড়ি করলে হত্যা করে লাশ গুমের হুমকী দেয়।

ক্ষতিগ্রস্থ কামাল জানান, জেলার সদর উপজেলার দুর্গাপুর উত্তর ইউনিয়নের সাহেবনগর গ্রামে ওমর ফারুকের সাথে একই এলাকায় বসবাসের কারণে পূর্ব থেকে পরিচয়ের সম্পর্ক গড়ে উঠে।

এরই সুত্র ধরে ফারুক কামালকে জানায়, তার কাছে মধ্য প্রাচ্যের তেল সমৃদ্ধ দেশ কাতারের ভালো ভিসা আছে। এতে ফারুক সেখানে যাওয়ার আগ্রহ করলে ফারুক ৬ লাখ টাকায় সেখানে ইলেক্ট্রনিক্স কাজের ভিসায় তাকে পাঠানোর জন্য মৌখিক চুক্তি করে।

পরে ২০১৬ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারী রাত আনুমানিক সাড়ে ৮ টায় কামালের স্ত্রী রাবেয়া আক্তার, হাবিবুর রহমান ও মিন্টু নামের তিনজন ফারুকের বাড়িতে গিয়ে ৬ লাখ টাকা প্রদান করে। পরবর্তীতে কামালকে কাতারে নিয়ে দিনমজুরের ভিসায় কাজ দিলে সে দেশে থাকা পরিবার ও ওমর ফারুকককে বিষয়টি অবহিত করে সমাধান চায়।

এনিয়ে পরিবারের পক্ষ থেকে ফারুকের সাথে যোগাযোগ করলে সে তার দোষ স্বীকার করে স্ত্রী রাবেয়ার কাছ থেকে আরো ৫৫ হাজার টাকা নিয়ে কামালকে দেশে ফিরিয়ে আনে। এরপর বিষয়টির সমাধানের আশ্বাস দিয়ে সময় কালক্ষেপন করতে থাকে। সর্বশেষ গত ১৮ এপ্রিল সকাল ৯ টায় কামালের স্ত্রী রাবেয়া ওমর ফারুকের সাহেবনগরের বাসায় যায় এবং তার পরিবারের কাছে ফারুকের আত্মগোপনে থাকার কথা বললে তাদের মাঝে তর্কবিতর্ক হয়।

এরই এক পর্যায়ে ক্ষিপ্ত হয়ে ওমর ফারুক ও তার পুত্র অনিক রাবেয়া বেগমকে বেদড়ক মারধোর সহ শ্লীলতাহানীর চেষ্টা করে। এসময় ওমর ফারুক আরো বলে,যদি আবারো টাকা নিয়ে বাড়াবাড়ি করে তবে মিথ্যা মামলা দিয়ে নাজেহাল প্রয়োজনে বিবাদী নিজে বা তাহার পরিচিত অজ্ঞাতনামা বিবাদীদের দিয়ে সময় সুযোগমত কামাল ও তার স্ত্রীকে মারধোরসহ খুন করিয়া লাশ গুম করে ফেলবে। এঅবস্থায় কামাল ও তার স্ত্রী চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছে।