কুমিল্লায় গ্রেপ্তার ২ জঙ্গি ৫ দিনের রিমান্ডে

নিজস্ব প্রতিবেদক ● কুমিল্লার গ্রেপ্তার দুই জঙ্গির পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। রোববার দুপুরে চট্টগ্রামের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আবু ইউসুফ শুনানি শেষে এ আদেশ দেন।

রিমান্ড পাওয়া জঙ্গিরা হলেন: মো. হাসান ও আহমেদ ইমতিয়াজ ওরফে জসিম। এর আগে চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে গ্রেনেড, চাপাতি ও বোমা তৈরির সরঞ্জাম উদ্ধারের ঘটনায় করা মামলায় তাঁদের গ্রেপ্তার (শ্যোন অ্যারেস্ট) দেখানো হয়।

চট্টগ্রাম জেলা আদালতের পরিদর্শক এ এইচ এম মশিউর রহমান গণমাধ্যমকে বলেন, দুই জঙ্গি ও বাড়ির মালিককে জিজ্ঞাসাবাদ করতে গত ১৪ মার্চ মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মিরসরাই থানার পরিদর্শক (তদন্ত) জাকির হোসেন প্রত্যেককে ১০ দিন করে রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করেন। ওই দিন তাঁদের মধ্যে বাড়ির মালিক রিদওয়ানের তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। তদন্ত কর্মকর্তা দুই আসামিকে মিরসরাই থানায় করা সন্ত্রাসবিরোধী আইনের মামলায় গ্রেপ্তার দেখানোর আবেদন করেন।

কিন্তু কুমিল্লায় মামলায় রিমান্ডে থাকায় তাঁদের সেদিন আদালতে হাজির করা যায়নি। রিমান্ড মঞ্জুর হওয়ার পর বাড়ির মালিক রিদওয়ানকে জিজ্ঞাসাবাদ করে আদালতে ফেরত পাঠানো হয়েছে। রোববার দুই আসামিকে হাজির করা হলে তাঁদের মিরসরাই থানার মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে পাঁচ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। আদালতে তাঁদের কোনো আইনজীবী ছিলেন না।

মিরসরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাইরুল ইসলাম জানান, প্রাথমিক তদন্তে গ্রেপ্তার জঙ্গিদের সম্পর্কে বেশ কিছু তথ্য পাওয়া গেছে। রিমান্ডে আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদ করে এসব তথ্য যাচাই-বাছাই করা হবে। কাল সোমবার চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে তাঁদের মিরসরাই আনা হবে।

গত ৭ মার্চ ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের চান্দিনা কুটুম্বপুর এলাকায় পুলিশ বাসে তল্লাশি চালাতে গেলে দ্রুত বাস থেকে নেমে যান দুই ব্যক্তি। একপর্যায়ে তাঁরা পুলিশকে লক্ষ্য করে বোমা ছুড়ে মারে। পরে আহমেদ ইমতিয়াজ ওরফে জসিম উদ্দিন ও মো. হাসান নামের দুই জঙ্গিকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাঁদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী ৮ মার্চ মিরসরাই উপজেলা সদরের পূর্ব গোভনিয়া এলাকার রিদওয়ান উদ্দিনের মালিকানাধীন রিদওয়ান মঞ্জিলে অভিযান চালায় পুলিশ। ওই বাড়ির নিচতলায় দুই জঙ্গি ভাড়া থাকতেন।

বোমা উদ্ধারের ঘটনায় ওই দিন রাতে মিরসরাই থানায় সন্ত্রাসবিরোধী আইনে মামলা করা হয়। মামলায় জসিম উদ্দিন, মো. হাসান ও বাড়ির মালিক রিদওয়ান উদ্দিনসহ ৮জনকে আসামি করা হয়।