কুমিল্লায় গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক ● কুমিল্লায় তানিয়া আক্তার টুম্পা নামের এক গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। পুলিশ ওই গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। তবে টুম্পার পরিবারের অভিযোগ তাঁকে পিটিয়ে হত্যার পর রশিতে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে। রবিবার ভোরে জেলার সদর উপজেলার পাঁচথুবী ইউনিয়নের মতিনগর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত তানিয়া আক্তার টুম্পা জেলার সদর দক্ষিণ উপজেলার নেউরা রাজাপাড়া এলাকার আবুল হাসেমের মেয়ে ও সদর উপজেলার মতিনগর গ্রামের ট্রাক্টরচালক মো. শফিকের ছেলে জুয়েল মিয়ার স্ত্রী। তাদের সংসারে এক বছর বয়সী একটি ছেলে সন্তান রয়েছে।

নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, আড়াই বছর আগে মতিনগর গ্রামের শফিকের ছেলে জুয়েল মিয়ার সঙ্গে টুম্পার বিয়ে হয়। বিয়ের সময় ৪ লাখ টাকা যৌতুক নেন জুয়েলের বাবা শফিক। এরপর আরো যৌতুকের দাবিতে আড়াই বছর ধরে বেশ ক’বার তানিয়ার উপর শারীরিক নির্যাতন চালায় স্বামী ও শ্বশুরবাড়ীর লোকজন। এ নিয়ে দুই পরিবারে দ্বন্দ্ব চলছিল। এরজের ধরে টুম্পাকে হত্যার পর রশিতে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে বলে অভিযোগ পরিবারের। এদিকে, এ ঘটনার পর থেকে পালাতক রয়েছে তানিয়া আক্তার টুম্পার স্বামী ও শ্বশুরবাড়ীর লোকজন।

এ বিষয়ে কুমিল্লা কোতয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবু সালাম মিয়া জানান, তানিয়া আক্তার টুম্পা নামের এক গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তবে মরদেহের গায়ে কোন আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি। মরদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। প্রতিবেদন পেলে বুঝবো এটি হত্যা না আত্মহত্যা।

error: দুঃখিত কুমিল্লার বার্তার কোন কনটেন্ট কপি করা যায় না।