কুমিল্লার শাসনগাছায় হাজারো পথচারীর দুর্ভোগ চরমে

নিজস্ব প্রতিবেদক ● কুমিল্লা মহানগরীতে প্রবেশের সবচেয়ে ব্যস্ততম সড়ক শাসনগাছা। রাজধানী ঢাকা ছাড়া সিলেটসহ জেলার ৮ টি উপজেলার হাজার হাজার মানুষ প্রতিদিন এই সড়ক পথে নগরীতে যাতায়াত করছে পড়ালেখা, চাকুরী, ব্যবসা, চিকিৎসাসহ নানা কাজে। এমনিতেই ফ্লাইওভারের নামে দীর্ঘ প্রায় ৪ বছরে মানুষের দুর্ভোগের সীমা নেই। তবে সাম্প্রতিক সময়ে শাসনগাছা থেকে পশ্চিম দিকে কৃষি সম্প্রসারণ অফিসের সড়কটির দক্ষিণ পাশ ঘেষে নির্মিত একটি ড্রেনের উপরই ছিল চলাচলের একমাত্র ভরসা।

কিন্তু গত সোমবার রাতে ওই ড্রেনটির মাশরুম সম্প্রসারণ অফিসের পাশে থাকা ড্রেনটির উপর থেকে প্রায় ২০ ফুট দীর্ঘ স্লাব কে বা কারা তুলে নিয়ে যায়। এতে চরম দুর্ভোগে পড়েছে হাজার-হাজার মানুষ। এদিকে সড়কটিতে কৃষি অফিস সংলগ্ন ফ্লাইওভারের নীচের অংশে বিদ্যূৎ সুবিধা না থাকায় প্রায়ই লোকজন ড্রেনে পড়ে দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছে।

স্থানীয় বিভিন্ন সুত্র জানায়, কুমিল্লা শাসনগাছা রেলওয়ে ফ্লাইওভার নির্মান কাজ শুরুর পর বিগত প্রায় চার বছর যাবৎ শাসনগাছা কৃষিসম্প্রসারণ অধিদপ্তর অফিসটির সামনে থেকে রেসকোর্স মুক্তি হাসপাতাল পর্যন্ত সড়কটির বেহাল দশা। বর্তমানে সড়কটির অবস্থা এতটাই ব্যবহারের অনুপযোগী যে প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ পায়ে হেটে এই অংশটি অতিক্রম করছে। বয়স্ক বা শিশুদের নিয়ে চলাচলে অবর্নণীয় দুর্ভোগের শিকার হতে হয়। তবুও মানুষ অনেকটা বাধ্য হয়েই চলাচল করছে।

সম্প্রতি শাসনগাছা রেলগেট সংলগ্ন এলাকা থেকে পশ্চিমে কুমিল্লা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর অফিস পর্যন্ত এলাকায় নতুণ করে সড়কটির দু’পাশে বেশ কিছু অংশে ড্রেন নির্মান করা হয়। সে ড্রেনের উপর বসানো হয় স্লাব। বর্ষার বৃষ্টিতে রাস্তাটিতে কাদা ও জলাবদ্ধতার সৃষ্টির কারণে লোকজনদের চলাফেরায় প্রতিদিনই দুর্ভোগের সৃষ্টি হতো।

তবে নির্মিত সেই ড্রেনের উপর স্লাব বসনোর পর সেটা অনেকটা পথচারীদের জন্য আশির্বাদ হয়ে উঠে। যদিও সড়কটির দক্ষিণ পাশের সেই ড্রেনের উপর কিছু কিছু অংশে ঢাকনাবিহীন ছিল। এতে প্রতিদিনই রাতের অন্ধকারে চলাচলকারী লোকজন ড্রেনে পড়ে কম বেশী দুর্ঘটনার শিকার হতো। তারপরও মানুষের স্থলি ছিল বৃষ্টির কাদা-জল ঠেলে গন্তব্যে পৌঁছার চেয়ে ড্রেনের স্লাবের উপর দিয়ে অনেকটা স্বাচ্ছন্দে রাস্তা অতিক্রমের। কিন্তু গত সোমবার (১৮ সেপ্টেম্বর) রাতের আধাঁরে অজ্ঞাত !

চোরেরা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সংলগ্ন মাশরুম সম্প্রসারণ অফিসের প্রধান ফটকের পশ্চিম পাশের প্রায় ২০ ফুট দীর্ঘ স্লাব তুলে নিয়ে যায়। ফলে চরম দুর্ভোগের কবলে পড়েছে এই সড়ক পথে চলাচলকারী হাজার হাজার মানুষ। সরকারী অর্থে নির্মিত ড্রেনের স্লাব কিভাবে কারা চুরি করে নিয়ে গেলে সেটা নিয়ে উঠেছে নানা মূখরোচক কাহিনী। কিছুদিন পূর্বে এই ড্রেনটি ঢালাই ছাড়া নির্মানের কারণে অল্প কয়েকদিনের ব্যবধানে সেটা ভেঙ্গে পড়েছিল। পরবর্তীতে সংশ্লিস্ট কাজের ঠিকাদার আবারো সেটা ঢালাই করে নির্মান করেছিল। বর্তমানে অসমাপ্ত থাকা ড্রেনটির উপর থেকে আবারো বেশ কিছু স্লাব চুরি’র ফলে মানুষের মনে প্রশ্ন এটা দেখার কি কেউ নেই। সরকারী কাজের তদারকির দায়িত্বে থাকা সংশ্লিস্ট কর্মকর্তারা তাহলে করছেটা কি? হাজার হাজার পথচারী মানুষের দুর্ভোগের দায় কার? বিষয়টির প্রতি প্রশাসনের সু-দৃষ্টি দুর্ভোগের শিকার পথচারীদের।

error: দুঃখিত কুমিল্লার বার্তার কোন কনটেন্ট কপি করা যায় না।