উদ্বোধনের অপেক্ষায় দেশের একমাত্র ওয়াই ব্রিজ

হোমনা প্রতিনিধি ● তিতাস নদীর উপর নির্মিত দেশের একমাত্র ওয়াই ব্রিজটি উদ্বোধনী অপেক্ষায় রয়েছে। চলছে ধোয়ামোছা ও রং-এর কাজ। ২০১২ সালে এলজিইডি ১০৫ কোটি টাকা ব্যয়ে কুমিল্লা জেলার হোমনা-মুরাদনগর ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বাঞ্ছারামপুর উপজেলার সংযোগস্থল তিতাস নদীর উপর ওয়াই ব্রিজের নির্মাণ কাজ শুরু হয়। ব্রিজের এক অংশ ভুরভুরিয়া, দ্বিতীয় অংশ রামকৃষ্ণপুর, তৃতীয় অংশ পূর্বহাটি গ্রামে গিয়ে মিলিত হয়েছে।

দীর্ঘদিনের স্বপ্নের এ ওয়াই ব্রিজের ব্যাপারে স্থানিয়রা জানান, এক সময় অত্র এলাকায় পণ্য ও যাত্রী পরিবহন হতো লঞ্চ, ইঞ্জিনচালিত নৌকা বা পালের নৌকা দিয়ে। গ্রামের মানুষদের যোগাযোগ স্থাপিত হতো বাঁশের সাঁকো, কাঠের সাঁকো বা পায়ে হেঁটে। খেয়া পারাপার হতো ছোট নৌকা দিয়ে। তখন দুর্ভোগের অন্ত ছিল না অত্র এলাকার স্কুল, কলেজের ছাত্র-ছাত্রী ও সাধারণ মানুষের। সুষ্ঠু যোগাযোগ ব্যবস্থার জন্য নির্মাণ করা হয়েছে এ ওয়াই ব্রিজ।

সেতুটির দৈর্ঘ্য ৭৭১ দশমিক ২০ মিটার, প্রস্থ ৮ দশমিক ১০মিটার। দৃষ্টিনন্দন এই সেতু নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছিল ৮৪ কোটি ৬৬ লাখ টাকা। পরবর্তীতে তা ১১২ কোটিতে ঠেকে। ব্রিজটিতে লাগানো হয়েছে ১১০টি সোডিয়াম বাতি এবং পাইল হয়েছে ৩০২টি আর ২৫টি বেইজ রয়েছে।

তিতাস নদীর এই ত্রিমোহনাটি এমনিতেই নান্দনিক। আবার দৃষ্টিনন্দন এই সেতুটির ফলে এ অঞ্চলের বিনোদনের নতুন মাত্রা যুক্ত হবে বলে মনে করছেন এলাকাবাসী।

হোমনা, নবীনগর, বাঞ্ছারামপুর, মুরাদনগর উপজেলার মানুষ এ সেতু চালু হলে দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে ব্যাপক ভূমিকা রাখবে বলে এলাকাবাসী ধারণা করছেন।

error: দুঃখিত কুমিল্লার বার্তার কোন কনটেন্ট কপি করা যায় না।