কুমিল্লায় পঙ্গু বৃদ্ধার পাশে ইউএনও রুপালী মন্ডল

কুমিল্লার বার্তা ডেস্ক ● কুমিল্লা সদর দক্ষিন উপজেলায় ফেসবুকের কল্যাণে গোয়ালগাঁও গ্রামের পরিত্যক্ত ঘরে বসবাসকারী প্রতিবন্দী রাহেলা খাতুন (৯০) পাশে দাড়িয়েছে উপজেলা নির্বাহী অফিসার রূপালী মন্ডল। সূত্রে জানা যায়, গত ১০ নভেম্বর ফেসবুকে এক আইডি থেকে অসহায় পঙ্গু মায়ের আর্তনাদ একটি মানবিক পোস্ট করা হয়। সেখানে উল্লেখ করা হয়, পায়ে চলতে না পেরে হাতে জুতা লাগিয়ে ভর করে আশ পাশ গ্রামে সাহার্য খোঁজে বেরান।

রাহেলা খাতুনের ৩ ছেলে। একজন আটো রিক্সা চালান, অন্য দুইজন দিন মুজুর। নিজেদের সংসার চালাতে হিমশিম খেতে হয়। তাই পঙ্গু (প্রতিবন্দী) মায়ের বাড়তি বোঝা কেউ নিতে রাজি নয়। বাধ্য হয়ে মানুষের কাছে হাত বাড়াতে হয় রাহেলা খাতুনকে।

এই বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী অফিসার রূপালী মন্ডলের নজরে আসলে ১৫ নভেম্বর বুধবার খোঁজ নিয়ে পূর্ব জোরকানন ইউনিয়নের গোয়ালগাঁও গ্রামের মৃত আমীর হোসেনের স্ত্রী প্রতিবন্ধী রাহেলার বাড়িতে যান।

এ সময় রাহেলা জানান, প্রতিবন্দী ভাতা যে পরিমান টাকা পান তা দিয়ে খাদ্য, ওষধের খরচ এবং জীবন চালানো যায় না, তাই সে বাধ্য হয়ে মানুষের কাছে হাত বাড়াতে হয়। তিনি থাকেন একটি পরিত্যক্ত ঘরে যে খানে ঝড়-বৃষ্টিতে পানি পড়ে।

পরে সরকারি সহায়তা হিসেবে ঘর নির্মাণের জন্য প্রতিবন্দী রাহেলার হাতে নগদ ৬ হাজার টাকা ও ১৬ পিস টিন দেন ইউএনও রূপালী মন্ডল। এ সময় ইউপি চেয়ারম্যান হারিস মিয়া সহ অন্য আন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

ইউএনও রূপালী মন্ডল জানান, ফেসবুকের ইতিবাচক ব্যবহারের মাধ্যমে সাধারন মানুষ এখন খুব সহজেই অনেক বিষয় প্রশাসনের নজরে আনতে পারেন। তিনি আরো বলেন, প্রতিবন্দী রাখেলা খাতুন চলাচল করার জন্য একটি হুইল চেয়ার দেওয়া হবে। এবং তার পরিবারের জন্য একটি টিউবওয়েল এর ব্যবস্থা করা হবে।