কুমিল্লার ৫টি হাসপাতাল বন্ধ করে দিলেন সিভিল সার্জন

কুমিল্লার বার্তা ডেস্ক ● কুমিল্লায় চলছে ভুয়া হাসপাতাল আর ভুয়া ডাক্তারদের বিরুদ্ধে স্বাস্থ্য বিভাগের অভিযান। মঙ্গলবার অভিযান পরিচালিত হয় চান্দিনা উপজেলায়। ওই দিন উপজেলার পৌর এলাকার ৫টি বেসরকারি হাসপাতালের কার্যক্রম বন্ধ করে সিলগালা করে দেয়া হয়েছে। কুমিল্লা সিভিল সার্জনের নেতৃত্বে ওই এলাকার প্রাইভেট হাসপাতালগুলোতে অভিযান চালিয়ে বিভিন্ন অনিয়ম অব্যবস্থাপনার কারণে এগুলো বন্ধ করে দেয়া হয়।

স্থানীয় সূত্র জানায়, বিভিন্ন অভিযোগের প্রেক্ষিতে মঙ্গলবার কুমিল্লা সিভিল সার্জন ডা. মো. মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে একটি দল জেলার চান্দিনা উপজেলার পৌর এলাকার বিভিন্ন প্রাইভেট হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে অভিযান চালায়।

এ সময় পর্যাপ্ত যন্ত্রপাতি ও দক্ষ টেকনেশিয়ান না থাকা, মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ রোগীদের সরবরাহ করা, রোগীর রোগ নির্ণয়ের লক্ষ্যে পরীক্ষা-নিরীক্ষার রিপোর্টের খালি কাগজে আগে থেকেই চিকিৎসকের স্বাক্ষর নিয়ে রাখা, স্বাস্থ্যসম্মত পরিবেশ না থাকাসহ বিভিন্ন অনিয়ম ও অব্যবস্থাপনা দেখা যায়।

এসব কারণে হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারসহ ৫টি প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম বন্ধ করে তালাবদ্ধ করে দেয়া হয়।

কুমিল্লা সিভিল সার্জন ডা. মো. মুজিবুর রহমান জানান, চান্দিনা উপজেলা সদরের পৌর এলাকায় অবস্থিত পপুলার হাসপাতাল, মডার্ন হাসপাতাল, মুক্তি হাসপাতাল, সেন্ট্রাল হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার এবং মাতৃ ডায়াগনস্টিক সেন্টারে নানা অনিয়ম ও অব্যবস্থাপনার কারণে এগুলোর কার্যক্রম সাময়িকভাবে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

সিভিল সার্জন জানান, এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি।

উল্লেখ্য, চলমান এ অভিযানে গত এক সাপ্তাহে জেলার চান্দিনায় ২টি, দাউদকান্দিতে ২টি ও লাকসামের ১টি হাসপাতাল নানা অনিয়মের কারনে বন্ধ করে দেওয়া হয়।