কুমিল্লা গভর্ণমেন্ট ল্যাবরেটরি স্কুলের ৫০ বছর পূর্তি উদযাপন

কুমিল্লার বার্তা ডেস্ক ● ঐতিহ্যবাহী কুমিল্লা গভর্ণমেন্ট ল্যাবরেটরি স্কুলের ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে সূবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন করা হয়। অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেণ কুমিল্লা সদর আসনের সংসদ সদস্য ও কুমিল্লা মহানগর আওয়ামীলীগের সভপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার। এমপি বাহার বক্তব্যের শুরুতে কুমিল্লা গভর্ণমেন্ট ল্যাবরেটরি স্কুলের ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে সূবর্ণ জয়ন্তী অনুষ্ঠানে আগত সকল সাবেক এবং বর্তমান ছাত্র-ছাত্রী ও শিক্ষকদের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান।

তিনি বলেন, ঐতিহ্যের কুমিল্লার আরেক ঐতিহ্যের প্রতিষ্ঠান এই স্কুল। যে স্কুলের শিক্ষার্থীরা সারা বিশ্বে কুমিল্লার ঐতিহ্যে ছড়িয়ে দিয়েছে। তিনি বলেন, বাংলাদেশ আজ সমৃদ্ধশালী দেশ। জাতীর জনক শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে সাড়া দিয়ে দেশের সাধারণ মানুষ মুক্তিযুদ্ধে অংশ নিয়ে পাকিস্তানিদের বিতাড়িত করে বাংলাদেশ স্বাধীন হয়। বঙ্গবন্ধু দেশের দায়িত্ব নিয়ে বিদ্ধস্ত বাংলাদেকে গঠনের কাজ হাতে নিয়েছিলেন, অল্প সময়ে বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশকে সমৃদ্ধ করতে সক্ষম হয়েছিলেন, তখনই ষড়যন্ত্র করে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে দেশকে পেছনে ফেলার ষড়যন্ত্র করে। দির্ঘ দিনের ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করে আবার শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ ঘুরে দাড়িয়েছে। আজ ৪১ সালের উন্নত বাংলাদেশ গড়ার কাজে হাত দিয়েছে শেখ হাসিনা, এমপি বাহার বলেন ৪১ সালের উন্নত বাংলাদেশ গড়তে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে, যে বাংলাদেশে আগামি দিনের একটি উন্নত বাংলাদেশ হিসেবে বিশ্বের কাছে মাথা উচু করে দাড়াবে, তিনি বলেন, কুমিল্লা আজ বাংলাদেশে রোল মডেল, কুমিল্লা কৃষি, র্যামিটেন্স, মৎস্য উৎপাদনসহ সকল বিষয়ে এগিয়ে আছে, এই কুমিল্লাকে এগিয়ে নিতে তিনি সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।। কোটবাড়ী স্কুল ক্যাম্পাসে সূবর্ণ জয়ন্তী অনুষ্ঠানে বিগত ৫০ বছরে স্কুলে অধ্যায়নরত শিক্ষার্থী ও শিক্ষকবৃন্দ এবং শিক্ষার্থীদের পরিবারের সদস্যরা অংশ নেয়। কুমিল্লা ওল্ড ল্যাবরেটরিয়ান এসোসিয়েশন ( কোলা) এর আয়োজনে এই সূবর্ণ জয়ন্তী অনুষ্ঠিত হয়। ১৯ জানুয়ারি সকাল ১০টায় কুমিল্লা গভর্ণমেন্ট ল্যাবরেটরি স্কুলে সূবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন হয়।

দিনব্যাপি চার পর্বের অনুষ্ঠান শুরু হয় আলোচনা পর্বের মাধ্যমে। দুপুরে মধ্যাহ্ন ভোজ ও সন্ধায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে সূবর্ণ জয়ন্তী অনুষ্ঠানের সমাপ্তি হয়।

সূবর্ণ জয়ন্তীতে সাবেক বর্তমান ছাত্র-ছাত্রীদের অংশগ্রহনে অনুষ্ঠানটি মিলনমেলায় পরিনত হয়। কুমিল্লা গভর্ণমেন্ট ল্যাবরেটরি স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীরা বহুদিন পরে একে অপরকে পেয়ে যেনো স্কুল জীবনের স্মৃতি বিনিময়ে ব্যাস্ত ছিল। সূবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষে কুমিল্লা গভর্ণমেন্ট ল্যাবরেটরি স্কুলকে বর্ণাঢ্য করে সাজানো হয়, বিশাল মাঠে প্যান্ডেল করে বসার ব্যবস্থা করা হয়। স্কুলের সাবেক ছাত্র-ছাত্রীরা সূবর্ণ জয়ন্তী অনুষ্ঠানের দিনটি কাটায় আনন্দের মধ্যদিয়ে। বয়সের ভারে ন্যুব্জ ছাত্র-ছাত্রীদের সাথে প্রবীন শিক্ষকদের অংশগ্রহন অনুষ্ঠানটি প্রান ফিরে পায়। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মনিরুল হক সাক্কু, কুমিল্লা ওল্ড ল্যাবরেটরিয়ান এসোসিয়েশন এর সভাপতি প্রফেসর ডাঃ এ এফ মহিউদ্দিন খাঁন এর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন বিশেষ অতিথি চলচিত্র অভিনেতা ইলিয়াস কাঞ্চন। সূবর্ণ জয়ন্তী অনুষ্ঠানে স্মৃতিচারণ করে বক্তব্য রাখেন স্কুলের প্রক্তন প্রধান শিক্ষক মমতাজুর রহমান, ৪০তম ব্যাচের ছাত্র তাজুল ইসলাম, ৮৮ ব্যাচের প্রাক্তন ছাত্র ইঞ্জিনিয়ার নজরুল ইসলাম, ৪৮তম ব্যাচের প্রধান শিক্ষক সামছুন নাহার, সূবর্ন জয়ন্তী উদযাপন পরিষদের আহবায়ক আমির হোসেন, শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক আব্দুল আওয়াল, ৮৪ ব্যাচের ছাত্র বিগ্রেডিয়ার জেনারেল কায়সার, ৯১ ব্যাচের প্রাক্তন ছাত্রী আলেয়া ফেরদৌস, প্রাক্তন ছাত্র কর্নেল টিটু,৭৯ ব্যাচের ছাত্র ইঞ্জিনিয়ার সেলিম ভূইয়া ও ইঞ্জিনিয়ার নজরুল ইসলাম ( মঞ্জু), ৭৯ ব্যাচের ছাত্র ইঞ্জিনিয়ার কামরুল ইসলাম। মনোমুগ্ধ সূবর্ণ জয়ন্তী অনুষ্ঠান উপস্থপনা করেন নওশীন নাহরীন ও কর্নেল টিটু।