সতর্ক করা হল মাশরাফি-শুভাশিষকে

কুমিল্লার বার্তা ডেস্ক ● চিটাগং ভাইকিংস ও রংপুর রাইডার্স ম্যাচে মাঠেই বিবাদে জড়িয়ে পড়ার ঘটনায় সতর্ক করা হয়েছে মাশরাফি বিন মুর্তজা ও শুভাশিষ রায়কে। শুক্রবার (১০ নভেম্বর) ম্যাচ রেফারি নিয়ামুর রশীদ রাহুল গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এ প্রসঙ্গে ম্যাচ রেফারি নিয়ামুর রশীদ জানান, দুই খেলোয়াড় নিজেদের ভুল স্বীকার করে নিয়েছেন। ম্যাচ শেষে তাদের দু’জনকেই ডেকে নিয়ে সতর্ক করা হয়েছে।

যেটাকে সফট ওয়ার্নিং বলা হয়। ভুল স্বীকার করে নেওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না কিংবা কোনও ডিমেরিট পয়েন্ট দেওয়া হচ্ছে না।

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত সেই ম্যাচের শেষের দিকের ঘটনা। চিটাগংয়ের দেওয়া ১৬৭ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করছিল রংপুর। ১৭তম ওভারের চতুর্থ বলে স্ট্রাইকে ছিলেন রংপুরের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা, বোলিংয়ে শুভাশিষ রায়। ডানহাতি এই পেসারের করা ইয়র্কার বলটি মাশরাফি ঠেকানোর পর বল কুড়িয়ে তার দিকে ছুড়ে মারতে চাইলেন শুভাশিষ। হাত দিয়ে ইশারা করে রংপুর অধিনায়ক তাকে বোলিং মার্কে ফিরে যেতে বললেন।

ব্যস! তেড়েফুড়ে মাশরাফির দিকে ছুটে গেলেন শুভাশিষ রায়। বুধবার সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) ম্যাচে ঘটে যাওয়া ওই ঘটনাটা রীতিমতো নাড়িয়ে দিয়েছে বাংলাদেশের ক্রীড়াঙ্গন।

ওইদিন অবস্থা দেখে সতীর্থরা ছুটে এসে শুভাশিষকে শান্ত করার চেষ্টা করেন। কিন্তু তাতেও কাজ হচ্ছিল না! বারবার মাশরাফির দিকে তেড়ে যাওয়ার চেষ্টা করছিলেন চিটাগংয়ের এই পেসার।

কিছুক্ষণ পর উইকেট থেকে তাকে সরিয়ে নেন সতীর্থ তানবীর হায়দার। তবু থামানো যাচ্ছিল না শুভাশিষকে।

ঘটনার পরই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে নিজের ভেরিফাইড পেজ থেকে লাইভে এসে সবাইকে থামতে বলেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। তারও আগে সংবাদ সম্মেলনে সবাইকে শান্ত থাকার পরামর্শ দেন জাতীয় ক্রিকেট দলের এই ওয়ানডে অধিনায়ক। এরপর শুভাশিষ নিজেও সেদিন রাতে মাশরাফির ঘরে গিয়ে দুঃখ প্রকাশ করেন।