মন্ত্রীর শূন্য আসনে কুমিল্লার দেলোয়ার হোসেন ফারুক

কুমিল্লার বার্তা ডেস্ক ● দেশের সফটওয়্যার খাতের শীর্ষ বাণিজ্য সংগঠন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার এন্ড ইনফরমেশন সার্ভিসের (বেসিস) সভাপতি ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব নেয়ার পর বেসিস থেকে পদত্যাগ করেছেন। তাঁর শূন্য স্থানে নতুন পরিচালক (কো-অপট) হিসেবে যোগদান করেছেন কুমিল্লার কৃতি সন্তান রেডিসন ডিজিটাল টেকনোলজিস লিমিটেডের চেয়ারম্যান ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা দেলোয়ার হোসেন ফারুক।

বৃহস্পতিবার বেসিসের নির্বাহী কমিটির বৈঠকে সর্বসম্মতি ক্রমে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

দেলোয়ার হোসেন ফারুক এর আগে বেসিস সদস্যদের উন্নয়নে তৈরি করা বেসিস মেম্বার’স ওয়েলফেয়ার ষ্ট্যান্ডিং কমিটির চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করছেন।

ঢাকা কলেজ থেকে স্নাতক ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় স্নাতকোত্তর ডিগ্রী লাভ করেন। বিজ্ঞান বিভাগ থেকে কুমিল্লা বোর্ডে এসএসসি ও এইচএসসিতে স্টার মার্কসসহ কৃতিত্বের সাথে পাস করেন।

দৈনিক আমাদের কাগজ এবং সাপ্তাহিক সংবাদের অন্তরালের সম্পাদক ও প্রকাশক, আতাকরা হাইস্কুল ও কলেজের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান, রেডিসন ডিজিটাল টেকনোলজিস লি., র‌্যাডিসন বিল্ডারস ও হাউজিং লি. এবং পরিবর্তন ফাউণ্ডেশন নামক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার নির্বাহী পরিচালকের দায়িত্ব পালন করছেন ফারুক।

ছাত্র জীবনে একেধারে পড়ালেখা ও রাজনীতি দুটোই সমান তালে চালিয়ে যেতেন তিনি। নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করার ক্ষেত্রে কখনও মনোবল হারাননি। জীবনে অনেক উত্থান-পতন আসলেও নিজের প্রতি শতভাগ আস্থা রেখে এগিয়ে যান তিনি। এক সময় সফলতা এসে ধরা দেয়। বর্তমানে তিনি সফলতার শিখরে অবস্থান করছেন।

শুরুটা ৯৯ সালে, তখন তিনি বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া ছাত্র। পড়ালেখা আর রাজনীতি দুটোই একসঙ্গে চলতো। একবার রাত ২টার দিকে খাওয়ার উদ্দেশ্যে শাহবাগ মোড়ে গিয়ে দেখেন একজন লোক কান্না করছে। কারণ জিজ্ঞেস করতেই জানালো, সে একজন ফুল ব্যবসায়ী, চট্টগ্রাম থেকে এসেছে ফুল কিনতে। কিন্তু ছিনতাইকারীরা তার টাকা পয়সা সবকিছু নিয়ে গেছে। এমন সময় হটাৎ তার মাথায় চিন্তা আসে চট্রগ্রামে ফুল পাঠালে কেমন হয়। পরবর্তীকালে তার সঙ্গে আলাপ করে ফুল পাঠানো শুরু করেন। এরপর চট্রগ্রাম ও সিলেটেও ফুল পাঠাতে শুরু করেন। ওই সময় ফুলের ব্যবসাও জমজমাট হয়ে উঠে। এরপর গাড়ির ব্যবসা এমনকি মাল্টিপারপাস কো-অপারেটিভ প্রতিষ্ঠা করেন। কিন্তু সেই ব্যবসা না টেকায় ২০০৬ সালে শুরু করেন ইন্টারনেট সংযোগ ব্যবসা।

এ ব্যবসা শুরু করার পর আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। ব্যবসায়ীক লাভের পর ২০০৮ সালে প্রতিষ্ঠা করেন রেডিসন ডিজিটাল টেকনোলিজ। সফটওয়্যার কোম্পানিগুলোর মধ্যে বর্তমানে রেডিসন টেকনোলজি পরিচিত নাম।

তিনি জানান, বর্তমানে আমরা সরকারি-বেসরকারি কিছু প্রজেক্ট নিয়েও কাজ করছি। যেগুলোর মধ্যে সাইবার সিকিউরিটি, ফ্রিল্যান্সিং বা আউটসোর্সিং এর মধ্যে দক্ষ মানবসম্পদ তৈরি এবং দক্ষতা উন্নয়ন করে কিভাবে মার্কেটে টিকে থাকবে সেই বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেয়া। চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগে এসব প্রশিক্ষণ কর্মশালা পরিচালনা করছি।

উল্লেখ্য, দেলোয়ার হোসেন ফারুকের গ্রামের বাড়ি কুমিল্লার লাকসামে। তিনি লাকসামের আতাকরা গ্রামের এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতার নাম মরহুম সিরাজুল হক।