কুমিল্লার ১৫টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান প্রার্থী ৬৩ জন

নিজস্ব প্রতিবেদক ● বছরের শেষ দিকে এসে ডিসেম্বরের ২৮ তারিখে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে কুমিল্লার জেলার চারটি উপজেলার ১৫টি ইউনিয়নের সাধারণ নির্বাচন। অন্যদিকে জেলার তিনটি উপজেলায় ৪টি ইউনিয়নের ওয়ার্ডে উপ-নির্বাচনও অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২৮ ডিসেম্বর। প্রতিটি ইউনিয়ন ও ওয়ার্ডে রয়েছে একাধিক প্রার্থী। নির্বাচনকে ঘিরে সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন ও ওয়ার্ডে নির্বাচনের আমেজ ছড়িয়ে পড়েছে। ভোটারদের মাঝে বিরাজ করছে উচ্ছ্বাস, আনন্দ।

এছাড়া দলীয় প্রতীকে নির্বাচন হওয়ায় গ্রামের হাটবাজারে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে প্রাণচাঞ্চল্য ফিরে এসেছে। সম্ভাব্য প্রার্থীদের নিয়ে চলছে নানা জল্পনা-কল্পনা। প্রার্থীরা ছুটছেন গ্রামের খেটে-খাওয়া ভোটারদের দ্বারে দ্বারে। তাদের দেওয়া বিভিন্ন ধরনের আশ্বাস- প্রতিশ্রুতিতে বুক বাঁধতে শুরু করেছেন ভোটাররা। এদিকে নির্বাচনকে সুষ্ঠু করার লক্ষ্যে প্রতিটি ইউনিয়নে একটি করে মোট ১৫ প্লাটুন বিজিবি, ১৫ প্লাটুন র্যা বসহ আনসার ভিডিপি ও পুলিশ সদস্য মোতায়েন থাকবে। পর্যাপ্ত পরিমাণ আইন-শৃঙ্খলা সদস্যের উপস্থিতিতে ১৫ টি ইউনিয়ন ও ৪টি ইউনিয়নের ওয়ার্ডে উপ-নির্বাচন সুষ্ঠু হবে বলে মনে করেন জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা খোরশেদ আলম।

জেলা নির্বাচন অফিস সূত্র জানায়, ৪টি উপজেলার ১৫টি ইউনিয়নে সাধারণ নির্বাচন ও ৪টি ইউনিয়নের ওয়ার্ডে উপ-নির্বাচনে রয়েছে একাধিক চেয়ারম্যান, মেম্বার ও মহিলা মেম্বার প্রার্থী। ১৫টি ইউনিয়নে নৌকা ও ধানের শীষ প্রতীক ছাড়াও রয়েছে একাধিক প্রতীকের প্রার্থী।

কুমিল্লার লাকসাম উপজেলায় ৩টি ইউনিয়নে সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। বাকই দক্ষিণ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান প্রার্থী নৌকা প্রতীক মো. আবদুল আউয়াল, ধানে শীষ প্রতীক আনোয়ার হোসেন, হাত পাখা খোরশেদ আলম, মোটর সাইকেল জসিম উদ্দিন ও নাঙ্গল আবদুর রহিম। মুদাফরগঞ্জ উত্তর ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক মো. শাহিদুল ইসলাম শাহীন, ধানের শীষ শাহ আলম, আনারস মোঃ শাহাজাহান পাটোয়ারী। মুদাফরগঞ্জ দক্ষিণ ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক আবদুর রশিদ, ধানের শীষ মোঃ আবুল বাসার ও নাঙ্গল খোরশেদ আলম।

নাঙ্গলকোট উপজেলার ৮টি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। আদ্রা দক্ষিণ ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক মো. আবদুল ওহাব, ধানের শীষ মোহাম্মদ মাইন উদ্দিন, আনারস বোরহান উদ্দিন ভূইয়া, হাতপাখা মোঃ নাসির উদ্দিন, চশমা মোঃ সাইফুল্লাহ। আদ্রা উত্তর ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক মো. তাজুল ইসলাম মজুমদার, ধানের শীষ মাহবুবা আক্তার, আনারস সালেহ আহম্মেদ। বটতলী ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক এন কে এম সিরাজুল আলম, ধানের শীষ গোলাম মাওলা, হাত পাখা মাবুল হক। দৌলখাঁড় ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক হাজী আবুল কালাম ভুঁইয়া, ধানের শীষ মোঃ মোশারফ হোসেন, ঘোড়া জাহাংগীর আলম, হাত পাখা আবদুর রহমান, টেলিফোন মোঃ আলী হোসেন, টেবিল ফ্যান গোলাম মোস্তফা, মটর সাইকেল শাহাজাহান ভূঁইয়া, আনারস মোঃ সেলিম। জোড্ডা পূর্ব ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক মো. আনোয়ার হোসেন মিয়াজী, ধানের শীষ শফিকুর রহমান চৌধুরী। জোড্ডা পশ্চিম ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক মো. মাসুদ রানা ভূঁইয়া, ধানের শীষ শাহজাহান মজুমদার। রায়কোট উত্তর ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক মো. রফিকুল ইসলাম মজুমদার, ধানের শীষ মোঃ ইদ্রিস মিয়া, আনারস মোঃ মহসীন। রায়কোট দক্ষিণ ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক মজিবুর রহমান (মজিব), ধানের শীষ নজরুল ইসলাম ভূঁইয়া, আনারস মোঃ জাহাঙ্গীর, চশমা মাহফুজুল আলম খন্দকার।

দাউদকান্দির ৩টি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। দাউদকান্দি বারপাড়া ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক মো. মনির হোসেন তালুকদার, ধানের শীষ মোঃ আলাউদ্দিন, চশমা আখের খান, আনারস এ কে আজাদ, ঘোড়া প্রতীক মোঃ জালাল উদ্দিন চৌধুরী, নাঙ্গল মোঃ শাহাজাহান মেম্বার।

দৌলতপুর ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক মো. মাকসুদুল আলম জমাদার, ধানের শীষ শফিকুল ইসলাম, আনারস আল আমিন, ঘোড়া মোহাম্মদ মহিনউদ্দিন, নাঙ্গল আলাউদ্দিন চৌধুরী, রজনীগান্ধা মোঃ সেলিম মিয়াজী, মোটর সাইকেল শাহজাহান বেপারী। ইলিয়টগঞ্জ দক্ষিণ ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক মো. মামুনুর রশিদ, ধানের শীষ মোঃ আনোয়ার হোসেন, চশমা মোঃ আবুল কাশেম খান, আনারস মোঃ মোতাহের হোসেন। সদর দক্ষিণ (লালমাই) উপজেলার বাকই উত্তর ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক মো. আইউব আলী, ধানের শীষ দেলোয়ার হোসেন, চশমা মোহাম্মদ মিজানুর রহমান, আনারস মোঃ আব্দুল ওহাব, ঘোড়া মোস্তফা কামাল চৌধুরী।

এছাড়া জেলার তিনটি উপজেলা ৪টি ইউনিয়নের ওয়ার্ডে উপ-নির্বাচনও অনুষ্ঠিত হবে একই দিনে। চান্দিনা উপজেলার দোল্লাই নবাবপুর ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ড, কেরনখাল ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ড, বরুড়া উপজেলার পয়ালগাছা ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ড এবং মুরাদনগর উপজেলার নবীপুর পশ্চিম ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে ২৮ ডিসেম্বর।

কুমিল্লা জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. খোরশেদ আলম জানান, ২৮ ডিসেম্বর জেলার ১৫টি ইউনিয়নে সাধারণ নির্বাচন ও ৪টি ওয়ার্ডে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনকে সামনে রেখে প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। নির্বাচনের আগের দিন নির্বাচনের কাজে ব্যবহৃত সকল ধরণের সামগ্রী সংশ্লিষ্ট উপজেলায় পাঠিয়ে দেওয়া হবে। নির্বাচন সুষ্ঠু করার লক্ষ্যে প্রতিটি ইউনিয়নে একটি করে মোট ১৫ প্লাটুন বিজিবি, ১৫ প্লাটুন র্যা বসহ আনসার ভিডিপি ও পুলিশ সদস্যরা মোতায়েন থাকবে। উপ-নির্বাচনের ওয়ার্ডগুলোতেও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী মোতায়েন থাকবে।