কুমিল্লার সিহান লন্ডন ক্রিকেট লীগের সেরা খেলোয়াড়

কুমিল্লার বার্তা ডেস্ক ● এবারও পেয়েছেন গোল্ডেন অ্যাওয়ার্ড লন্ডন ন্যাশনাল ক্রিকেট লীগ। ধারাবাহিকতা বজায় রেখে সিনথিলা ক্লাবের হয়ে প্রথম হয়েছেন। আর পুরো লীগের দ্বিতীয় সেরা খেলোয়াড়। এ ব্যাপারে সিহানের বাবাকে প্রশ্ন করা হলো: আপনার ছেলেকে লন্ডনে ক্রিকেট খেলার সবচেয়ে বেশি অবদান কার? উত্তরে-আয়াজ করীম স্যার। তিনি আরো আরো জানান ওয়েলফার অফিসার এসেক্স কাউন্টি ক্রিকেট লীগ।

লন্ডনে ক্রিকেট খেলার সার্বিক সহযোগিতা ও সুযোগ করে দেওয়ার জন্য স্যারকে আমার অন্তরে অন্তস্থল থেকে ও কুমিল্লাবাসীর পক্ষ থেকে আন্তরিক অভিনন্দন। সূত্রে জানা যায়-২০১৬ সালের ব্যাট হাতে লীগ সেরা ব্যাটসম্যান আমিনুল ইসলাম সিহান। সিনটিলা ক্রিকেট ক্লাবের হয়ে ২০১৭ মৌসুমেও সাফল্যের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখেন। এ মৌসুমে তিনি সর্বমোট ১০২১ রান করেন। ন্যাশনাল ক্রিকেট লীগ এ সিনটিলার হয়ে ৫১৯ রান আর ব্রিটেনের স্বনামধন্য হ্যারন্ড উড (Harold Wood) এর হয়ে শেফার্ড নেয়াম লিগে করেন ৫০২ রান। যার মধ্যেই ছিল ১টি শতক ও ৫টি অর্ধশতক। গ্লাভস হাতে উইকেট রক্ষকের দায়িত্ব পালন করেন নৈপুন্যের সাথে।

সিনটিলার হয়ে সর্বোচ্চ রান করেন সিহান এবং তাকে গোল্ড অ্যাওয়ার্ড দেওয়া হয়। পাশাপাশি তার নাম Honour Board এ ও দেওয়া হয়। ২০১৮ ক্রিকেট মৌসুমের জন্য ইতিমধ্যেই বিভিন্ন ক্লাবে সিহানকে দলে রাখার ইচ্ছা প্রকাশ করেছে। নির্ভরযোগ্য সূত্রমতে আগামী মৌসুমে তিনি নিউ ক্রিকেট ক্লাব (NEO Cricket Club) এর হয়ে খেলবেন বলে জানা গেছে।

কুমিল্লা মহানগরীর পুরাতন চৌধুরী পাড়া হোমিও কলেজ সংলগ্ন উত্তর গাংচর এর বাসিন্দা ও কুমিল্লা সিডি প্যাথ এণ্ড হাসপাতালের প্রশসনিক কর্মকর্তা মোঃ হাসান ও জোহরা বেগম এর ২য়পত্র মোঃ আমিনুল ইসলাম সিহান ২০১১ সালে উচ্চ শিক্ষার জন্য ইংল্যান্ড যান। তিনি ইংল্যান্ডে লেখাপড়ার পাশাপাশি ক্রিকেট খেলার প্রতিও মনোযোগী হন।

উল্লেখ্য যে, মোঃ আমিনুল ইসলাম সিহান বাংলাদেশে অবস্থান কালে লেখাপড়ার পাশাপাশি ক্রিকেট খেলার প্রতি মনযোগ ছিল বেশি। তখনকার সময়ে তার বাবা ক্রিকেট প্রেমিক মো. হাসান, তার ছেলের আগ্রহ দেখে কুমিল্লার কৃতি সন্তান বাংলাদেশ টেস্ট ক্রিকেট প্লেয়ার সাবেক ক্রিকেটার এনামূল হক মনির এর বড় ভাই, এমদাদুল হক ইমদু ভাইয়ের স্মরণাপন্ন হয়ে তার কাছে ক্রিকেট শেখার জন্য কোচিং ক্যাম্পে ভর্তি করিয়ে দেন। যার কারণে আজকের এই সফলতার, বাংলাদেশে ও বিভিন্ন টিমে খেলে ভালো পারফম্যান্স অর্জন করে ছিলেন। তার এ অর্জনে কুমিল্লার জেলা ক্রীড়া সংস্থা, সামাজিক, রাজনৈতিক, ডাক্তার, ব্যবসায়ী, বন্ধু মহল ও বিভিন্ন পেশাজীবীসহ কুমিল্লাবাসি গর্বিত।

এ ব্যাপারে তার মা গৃহিনী জোহরা বেগম জানান-আমার ছেলে ছোট বেলা থেকেই চঞ্চল ও ক্রিকেট প্রেমি ছিল। বড় কষ্ট করে ছেলেকে মানুষের মত মানুষ বানাতে শ্রম দিয়েছি। ছেলেকে প্রথমে ওয়াই ডব্লিউ সিএতে পড়াই এবং পরে আওয়ার লেডি অব ফাতেমা গার্লস হাই স্কুল থেকে সমাপনী শেষ করে।

পরবর্তীতে কুমিল্লা জিলা স্কুল থেকে এসএসসিতে জিপিএ-৫ প্রাপ্ত হয়ে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজ থেকে এইচএসসি পাশ করে। উচ্চ ডিগ্রির জন্য তাকে ইংল্যান্ডে পাঠাই।

তার সফল অর্জনে এলাকাবাসী কুমিল্লাবাসীর কাছে আমরা দোয়া চাই। সে যেন আরো ভালো খেলোয়ার হতে পারে। তার সফলতার জন্য তার বাবাকে ধন্যবাদ জানাই।