কুমিল্লায় প্রেমিক অন্যত্র বিবাহ করায় প্রেমিকার আত্মহত্যা

কুমিল্লার বার্তা ডেস্ক ● কুমিল্লায় ভালোবাসার মানুষটি অন্যত্র বিবাহ করায় প্রেমিকের সামনে আত্মহত্যা করেছে প্রেমিকা। গত সোমবার দুপুরে তিতাসে উপজেলার আসমানিয়া বাজারে হাজী ফার্মেসীর সামনে এঘটনার পর চিকিত্সাধীন অবস্থায় হ্যাপি আক্তার (১৮) নামের ওই যুবতী মারা যায়। বিকালে তাকে শোলাকান্দি গ্রামে দাফন করা হয়। এ ঘটনার পর প্রেমিক পলাতক রয়েছে।

জানা যায়, উপজেলার শোলাকান্দি গ্রামের দানু ভুঁইয়ার মেয়ে হ্যাপি আক্তার তার খালার বাড়ি কদমতলীতে বসবাস করে আসছিল। এই সুবাদে একই গ্রামের হাজী রফিকুল ইসলাম ওরফে ডাক্তার রফিকের ছেলে আসমানিয়া বাজারের হাজী ফার্মেসির পরিচালক বায়েজিদের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। প্রায় দেড় বছর যাবত্ তাদের এ সম্পর্কের মাঝে গত শুক্রবার মুরাদনগর উপজেলার চানপুরে সে বিবাহ করে। খবরটি প্রেমিকা হ্যাপির কানে পৌঁছলে সোমবার সকালে সে হাজী ফার্মেসিতে গেলে বায়েজিদ তার সাথে দুর্ব্যবহার করে। এরপর হ্যাপি বাজারের হাতাব ভুঁইয়ার রাইস মিলে গিয়ে উপস্থিত লোকজনকে কেড়ির বড়ি খেয়েছে বলে জানায় এবং বাঁচার জন্য আকুতি করেন। খবর পেয়ে তাত্ক্ষণিক বায়েজিদ ঘটনাস্থলে না আসলেও পরে তার বন্ধু রুবেলকে পাঠায়।

এদিকে স্থানীয় একটি হাসপাতালে তাকে ভর্তি করা হলে জরুরিভিত্তিতে তাকে কুমিল্লায় প্রেরণ করার পরামর্শ দেওয়া হয়। কুমিল্লা যাওয়ার পথে হ্যাপি মারা যায়। তিতাস থানার ওসি মো. নূরুল আলম জানান, বিষয়টি আপনার কাছ থেকে আমি প্রথম শুনলাম। কেউ আমাকে মৌখিক বা লিখিতভাবে জানায়নি।