কুমিল্লায় আ.লীগের দুই গ্রুপে দফায় দফায় সংঘর্ষ

কুমিল্লার বার্তা ডেস্ক ● কুমিল্লায় আওয়ামীলীগের দুই গ্রুপে দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সোমবার (২৭ নভেম্বর) বিকাল ৩টায় চান্দিনা উপজেলা পরিষদের সামনের সড়কে সংঘর্ষ হয়। এসময় উভয় পক্ষের মধ্যে ইট-পাটকেল বিনিময় ও লাঠি নিয়ে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এতে উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক আহবায়ক মো. দুলাল হোসেন, আওয়ামীলীগহ নেতা মনু মিয়া প্রধান, অমল, ছাত্রলীগ নেতা সোহেল, পুলিশ ও সাংবাদিকসহ অন্তত ১২জন আহত হয়।

সংঘর্ষের পর কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামীলীগ সহ-সভাপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি ডা. প্রাণ গোপাল দত্তের সমর্থকরা মহাসড়ক অবরোধ করে।

এক পর্যায়ে তারা মহাসড়কের উপর বসে পড়ে। এসময় সড়কের উভয় পার্শ্বে তীব্র যানজট সৃষ্টি হয়। এদিকে সংঘর্ষের খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পরে চান্দিনা উপজেলা পরিষদের সামনের সড়কে ও মহাসড়কে এক প্লাটুন অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়।

এদিকে বিকাল সাড়ে ৪টায় ডা. প্রাণ গোপাল এর সমর্থকরা উপজেলা আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে প্রতিবাদ সভার প্রস্তুতি নেয়। খবর পেয়ে আলী আশরাফ এমপি’র সমর্থকরা আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে গিয়ে ডা. প্রাণ গোপাল এর সমর্থকদের মারধর করে।

এসময় উপজেলা ছাত্রলীগ সাংগঠনিক সম্পাদক সামিরুল খন্দকার রবি, সহ-সভাপতি শরীফুল ইসলাম, গ্রন্থ ও প্রকাশনা সম্পাদক মেহেদী হাসান, আর.এ কলেজ ছাত্রলীগ আহবায়ক মো. জামিল, পৌর ছাত্রলীগ নেতা আরমান হোসেন, শ্যামলসহ আরও অন্তত ৯ জন গুরুতর আহত হয়।

সংঘর্ষ চলাকালে চান্দিনা পূর্ব বাজার আওয়ামীলীগ কার্যালয় সংলগ্ন এলাকার ব্যবসায়ীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। আহতদের চান্দিনা মোহনা মেডিকেল সেন্টার, চান্দিনা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

চান্দিনা উপজেলা যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. জাহাঙ্গীর আলম, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক আহবায়ক মো. দুলাল হোসেন, পৌর যুবলীগ সভাপতি আলহাজ্ব মো. মনির খন্দকার জানান, ‘শনিবার (২৫ নভেম্বর) প্রাধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত চিকিৎসক জেলা আওয়ামীলীগ সহ-সভাপতি ডা. প্রাণ গোপাল দত্তের অনুসারী চান্দিনা উপজেলা ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা উপজেলার নবাবপুরে আনন্দ র্যা লি বের করে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ মার্চের ভাষণ ইনেস্কো কর্তৃক বিশ্ব প্রামাণ্য ঐতিহ্য হিসেবে স্বীকৃতি পাওয়ায় ওই র্যা লি বের করা হয়। এসময় উপজেলা যুবলীগ যুগ্ম-আহবায়ক মো. গিয়াস উদ্দিন ও যুবলীগ নেতা বাকী’র নেতৃত্বে ছাত্রলীগের র্যা লিতে হামলা চালিয়ে ব্যানার-ফেস্টুন ছিড়ে ফেলে।

ওই হামলার নিন্দা জানিয়ে ডা. প্রাণ গোপাল দত্তের অনুসারী আওয়ামীলীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা সোমবার (২৭ নভেম্বর) বিকালে চান্দিনা পালকি সিনামা হল এলাকা থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করে।

মিছিলটি চান্দিনা বাজার হয়ে উপজেলা পরিষদ গেইট এলাকায় পৌঁছলে সাবেক ডেপুটি স্পিকার অধ্যাপক মো. আলী আশরাফ এম.পি গ্রুপের নেতাকর্মীরা মিছিলে হামলা চালায়।’

এব্যাপারে চান্দিনা থানার অফিসার ইন চার্জ আলী মাহমুদ জানান, কয়েকজন পুলিশের উপর ইট পড়েছে, তবে কেউ গুরুতর নয়। ঘটনার রহস্য উদঘাটনে তদন্ত চলছে। এখনও কোন লিখিত অভিযোগ পাইনি। পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।